Yamaha FZS FI Double Disc ৩৫,০০০ কিলোমিটার রিভিউ- শোয়াইব

This page was last updated on 28-Nov-2022 11:55am , By Shuvo Bangla

আমার নাম দেওয়ান মোহাম্মদ শোয়াইব হোসেন। আমার বাসা গাজীপুর, কোনাবাড়ী। আমি বর্তমানে যে বাইকটি ব্যবহার করি তা হল Yamaha FZS FI Double Disc । বাইকটি আমি ৩৫,০০০ কিলোমিটার রাইড করেছি ।

yamaha fzs fi double disc at tetuliya

আমার জীবনের প্রথম বাইক চালানো শেখা পালসার ১৫০ বাইকটি দিয়ে। আমি যখন ক্লাস ৮ পড়তাম তখন বাইকের প্রেমে পড়ে যাই। বাইক চালাতে না পারলেও বাইকে উঠে বসে থাকতাম । তখন ছোট ছিলাম তাই বাইকে বসে ঠিকমতো পা দিয়ে মাটি ছুঁতে পারতাম না।

তাও প্রচন্ড বাইক চালানোর ইচ্ছা ছিল। একদিন বড় ভাইকে নিয়ে সাহস করে বাইক নিয়ে বেরিয়ে পড়লাম, সবকিছু আগে থেকেই জানা ছিল তার জন্য প্রথম দিনে বাইক চালাতে পেরেছি। আস্তে আস্তে পুরো পরি চালানো শিখে গেলাম। জীবনের প্রথম বাইক চালানোর অভিজ্ঞতা ছিল অসাধারণ।

বাইকিং ভালোবাসার কয়েকটি কারণ এর মধ্যে অন্যতম কারণ হচ্ছে বাইকিং এর মধ্যে রয়েছে স্বাধীনতা। যা অন্য কোন কিছুর মধ্যে নেই। আপনি চাইলেই বাইক যেভাবে চাইবেন সেভাবেই চলবে, আস্তে চাইলে আস্তে চলবে, দ্রুত চাইলে দ্রুত চলবে। যখন যা ইচ্ছা তাই করা যায় বাইক নিয়ে। আমি একাকী ভ্রমন করতে ভালোবাসি তার জন্যও বাইক আমার কাছে খুব প্রিয়।

yamaha fzs fi double disc bike

যখন আমার বয়স ১৮ হয় তখন বাইক নেওয়ার খুব ইচ্ছা ছিল। কিন্তু এক বাপের এক ছেলে হওয়ার কারণে বাসা থেকে বাইক দিতে চাইত না। তাও বাবাকে রাজি করিয়ে বাইক নেওয়ার চিন্তা করি। কিন্তু কোন বাইক নিব তা সিলেক্ট করা ছিল না। অনেক ভাই ব্রাদার এর পরামর্শ নিয়ে Yamaha Brand এর বাইক নেয়ার সিদ্ধান্ত নেই।

ইয়ামাহা ব্র্যান্ডের বাইক বেছে নেওয়ার কারণ কম্ফোর্ট, মাইলেজ বেশি, সকলের পছন্দ, পার্টস পাওয়া যায়, সার্ভিস শোরুমে করা যায়, কোন জায়গায় ঘুরতে হয় না।

২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে Yamaha FZS FI Double Disc বাইকটি ২,৬৫,০০০ টাকা দিয়ে ইয়ামাহা শোরুম থেকে ক্রয় করি। বাইকটি যেদিন ক্রয় করেছি তার আগের রাতে ঘুম হয়নি। শুধু চিন্তা করেছি কখন সকাল হবে। সকাল হওয়ার পর আব্বুকে নিয়ে গাজীপুর ইয়ামাহা শোরুম ইয়ে বাইক এর জন্য প্রয়োজনীয় সকল কাগজপত্র টাকা জমা দিয়ে বাইকটি ক্রয় করি।

প্রথম নিজের বাইকটি চালানোর অভিজ্ঞতা ছিল অসাধারণ যা কখনো ভোলার নয়। মনের ভিতরে একটা অন্যরকম তৃপ্তি কাজ করতেছিল। আমি গাজীপুর ইয়ামাহা শোরুম থেকে বাইকটি ক্রয় করার জন্য বাইকটিতে এক বছরে পাঁচবার ফ্রি সার্ভিস করিয়েছি।

Yamaha FZS FI Double Disc যখন নতুন নতুন ক্রয় করি তখন মাইলেজ খুবই কম পেতাম ৩৫ থেকে ৩৭ এর মধ্যে।
কিন্তু বাইকটি যখন ২৫০০ কিলোমিটার রানিং হয়, তারপর থেকে আস্তে আস্তে মাইলেজ বাড়তে শুরু করে, আমার বাইকটি ৩৫ হাজার কিলোমিটার চলেছে বর্তমানে মাইলেজ ৪০ থেকে ৪৫ পাই।

yamaha fzs fi double disc at teknaf

আমি প্রথম পাঁচ হাজার কিলোমিটার ইয়ামালুব 10w40 গ্রেডের ইঞ্জিন অয়েল ব্যবহার করেছি যার বর্তমান বাজার মূল্য ৫০০ টাকা । ১ টি ইঞ্জিন অয়েল দিয়ে 700 কিলোমিটার চালাতাম। তারপর থেকে Motul 7100 Full Synthetic 10w40 ইঞ্জিন অয়েল ব্যবহার করি, ইঞ্জিন অয়েলটি 1100 টাকায় ক্রয় করে 2500km থেকে 3000km চালাই। এক কথায় আমি মটুল ইঞ্জিন অয়েলের ফ্যান, যেমনি স্মুথ, তেমনি হাই কোয়ালিটি।

Yamaha FZS FI V2 Dual Disc Edition In Bangladesh - Team BikeBD


আমি প্রথম ব্রেক প্যাড চেঞ্জ করি ৭০০০ কিলোমিটারে, দ্বিতীয়বার ব্রেক প্যাড চেঞ্জ করি ১২,০০০ কিলোমিটারে, তৃতীয়বার ব্রেক প্যাড চেঞ্জ করি ২২,০০০ কিলোমিটার, চতুর্থবার চেঞ্জ করি । চেইন স্প্রোকেট সেট চেঞ্জ করি 17 হাজার কিলোমিটার, সামনে এবং পেছনের টায়ার চেঞ্জ করি 24 হাজার কিলোমিটার এ। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ছোট খাটো সামনে-পিছনে বিয়ারিং, হাইড্রোলিক এবং ক্লাস কে বল চেঞ্জ করেছি।

১৭,০০০ কিলোমিটারের সময় সাজেক ভ্রমণ করি তখন বাইকের টপ স্পিড ছিল ১১৯। কিন্তু বর্তমানে বাইকটি ৩৫ হাজার কিলোমিটার চালানোর পরেও বাইকটির ১২৪ টপ ইস্পিড পাই।

Yamaha FZS FI Double Disc বাইকের পাঁচটি ভালো দিক -

  • বাইকটি খুবই কমফর্টেবল।
  • বাইকের মাইলেজ বেশি।
  • বাইকটি দিয়ে লং ট্যুরে খুবই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করা যায়।
  • বাইকটির কন্ট্রোলিং খুবই ভালো।
  • ব্রেকিং সিস্টেম খুবই ভালো।

Yamaha FZS FI Double Disc বাইকের পাঁচটি খারাপ দিক -

  • বাইকটির টপ স্পিড কম।
  • ক্লাসপ্লেট দ্রুত শেষ হয়ে যায়।
  • টায়ার দ্রুত শেষ হয়ে যায়।
  • চেইন সেট দ্রুত ক্ষয় হয়ে যায়।
  • বাইকটির হেড লাইটের আলো খুবই কম।

yamaha fzs fi double disc at sajek

বাইকটি দিয়ে আমি ৫ টির বেশি লং ট্যুর করেছি। তার মধ্যে অন্যতম হলো সাজেক ভ্রমণ,উত্তরবঙ্গ ভ্রমণ, সিলেট ভ্রমণ, কক্সবাজার ভ্রমণ, খুলনা ভ্রমণ।

সাজেক যাওয়ার সব বাইকার এর জন্য স্বপ্ন, সেই স্বপ্ন পূরণ করেছি এই বাইকটি দিয়ে, সাজেকের আঁকাবাঁকা পথ আমার কাছে খুবই মনমুগ্ধকর। পাহাড় দেখে পরে চলে গিয়েছিলাম কক্সবাজার সমুদ্রের পাড়ে লোনা জলে। মেরিন ড্রাইভ রোড আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। বাইকে ভ্রমণ করে আমি খুবই আনন্দ পাই। আমার কাছে মনে হয় বাইক আমার রক্তের সাথে মিশে গিয়েছে।

yamaha fzs fi double disc

Yamaha FZS FI Double Disc নিয়ে আমার মতামত হল কেউ যদি ফ্যামিলি বাইক নিতে চায় তাহলে Yamaha FZS FI Double Disc বাইকটি সেরা একটি বাইক হবে ।  মাইলেজ ,কম্ফর্ট , ব্রেকিং সিস্টেম সবকিছু মিলিয়ে একটি অসাধারণ বাইক। বাইকটিতে তেমন কোন বড় ধরনের সমস্যা  হয়নি। টপ স্পিড বাদে বাইকটি সেরা। মনে হয় বাংলাদেশের রাস্তার জন্য ১০০ থেকে ১১০ স্পিড বেস্ট। কথায় আছে যত গতি তত ক্ষতি।

আপনি চাইলে Yamaha FZS FI Double Disc বর্তমান বাজার মূল্য ২,১০,০০০ টাকায় নিতে পারেন। যা আপনার জন্য একটি সঠিক সিদ্ধান্তই হবে।

yamaha fzs fi double disc bike colour

লিখেছেনঃ দেওয়ান মোহাম্মদ শোয়াইব হোসেন

আপনিও আমাদেরকে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠাতে পারেন। আমাদের ব্লগের মাধ্যেম আপনার বাইকের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করুন! আপনি বাংলা বা ইংরেজি, যেকোন ভাষাতেই আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ লিখতে পারবেন। মালিকানা রিভিউ কিভাবে লিখবেন তা জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন এবং তারপরে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠিয়ে দিন articles.bikebd@gmail.com – এই ইমেইল এড্রেসে।

Best Bikes

Honda CB Hornet 160R

Honda CB Hornet 160R

Price: 169800.00

Honda CB Hornet 160R ABS

Honda CB Hornet 160R ABS

Price: 255000.00

Honda CB Hornet 160R CBS

Honda CB Hornet 160R CBS

Price: 212000.00

View all Best Bikes

Latest Bikes

Yamaha Majesty

Yamaha Majesty

Price: 0.00

Bajaj Pulsar 400

Bajaj Pulsar 400

Price: 0.00

CFMoto 300SS

CFMoto 300SS

Price: 510000.00

View all Sports Bikes

Upcoming Bikes

Bajaj Pulsar 400

Bajaj Pulsar 400

Price: 0.00

CFMoto 300SS

CFMoto 300SS

Price: 510000.00

Qj motor srk 250

Qj motor srk 250

Price: 0.00

View all Upcoming Bikes