TVS Raider 125 টেস্ট রাইড রিভিউ - টিম বাইকবিডি

This page was last updated on 15-Nov-2023 10:57am , By Raihan Opu Bangla

টিভিএস অটো বাংলাদেশ, বাংলাদেশের মোটরসাইকেল ব্র্যান্ড গুলোর মধ্যে অন্যতম জনপ্রিয় একটি ব্র্যান্ড। ১২৫সিসি সেগমেন্টে বাংলাদেশে টিভিএস এর বহুল প্রত্যাশিত স্পোর্ট কমিউটার TVS Raider 125 মোটরসাইকেল লঞ্চ করেছে।

TVS Raider 125 সিসি বাইক টেস্ট রাইড রিভিউ - টিম বাইকবিডি

বর্তমান সময়ের রাইডারদের চাহিদা মেটাতে মোটরসাইকেলটি সূক্ষ্মভাবে ডিজাইন করা হয়েছে। Raider 125 এর মুলত লুকস, ডিজাইন, স্টাইল এবং পারফর্মেন্সের একটি কমপ্লিট প্যাকেজ, যা একে এই সেগমেন্টে অনন্য করে তুলেছে। একজন বাইকপ্রেমী এবং বাইক হিসেবে বাইকটি নিয়ে অনেক বেশি আগ্রহী ছিলাম আর বাইকটি রাইড করা আমার কাছে সুযোগ এসেছে। তাই আমি আজকে আপনাদের জন্য নিয়ে এসেছি TVS Raider 125 টেস্ট রাইড রিভিউ।

প্রথমে TVS Raider 125 বাইকটি নিয়ে যদি বলতে হয় তবে এর ডিজাইন এবং বাইরের লুকস নিয়ে বলা যায়। বাইকটিতে দেয়া হয়েছে একটি আকর্ষণীয় ডিজাইন এবং লুকস, যা প্রথম দেখাতেই আপনাকে মুগ্ধ করবে।

মোটরসাইকেলটির সামনের দিক বেশ তীক্ষ্ণ এবং এগ্রেসিভ হবার কারণে এটিকে ১২৫সিসির মনে হয় না। এছাড়া সামনের দিকে দিক স্পোর্টি হবার কারণে বাইকটির মধ্যে একটি স্পোর্টি লুকস চলে এসেছে।

অপর দিকে এর হেডলাইট LED, যা রাতের বেলা রাইডের সময়ও চমৎকার আলো প্রদান করে। বাইকটির ফুয়েল ট্যাঙ্কের ডিজাইন পেশীবহুল এবং সাইড কাওল রয়েছে, যা একে স্পোর্টি লুকস এনে দিয়েছে।

সাধারণত ১২৫সিসি সেগমেন্টের সিট গুলো হয় ইউনি সিট। কিন্তু টিভিএস রেইডার এর সিট হচ্ছে স্প্লিট-সিট সেটআপ, যা একে এই সেগমেন্টে সবার চেয়ে আলাদা করেছে। ব্ল্যাক-আউট অ্যালয় হুইলগুলি এর সৌন্দর্যকে আরও বাড়িয়ে তুলেছে, তাই বাইকটি রাস্তায় চলার সময়ে সবাই একবারের জন্য হলেও তাকিয়ে থাকেন।

যখন প্রথমবার TVS Raider 125 রাইড করলাম, তখনই আমি এর আরামদায়ক রাইডিং বা সিটিং পজিশন অনুভব করেছি। বাইকটির সিটিং পজিশন বেশ আরামদায়ক এবং সেই সাথে স্পোর্টি, যা আপনাকে দীর্ঘ সময় ক্লান্তিমুক্ত ভাবে রাইড করায় সহায়তা করবে। এই বাইকটি সুইচ গিয়ার গুলো বেশ উন্নত মানের।

এখন আসা যাক এই বাইকটির ইঞ্জিনের ব্যাপারে। বাইকটিতে দেয়া হয়েছে একটি ১২৫সিসি সিঙ্গেল সিলিন্ডার এয়ার-কুলড ইঞ্জিন, যা থেকে 12.7 BHP এবং 11.5 Nm টর্ক উৎপন্ন করে, যা এটিকে শহর এবং হাইওয়ে রাইডের জন্য আদর্শ।

টেস্ট রাইডের অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায় যে, ইঞ্জিনের পাওয়ার ডেলিভারি স্মুদ এবং লো এন্ড থেকে হাই এন্ড টর্ক পর্যন্ত ভালো ফিডব্যাক প্রদান করে থাকে। শহর বা হাইওয়ে দুটি জায়গাতেই ইঞ্জিন পারফর্মেন্স অনেক দারূণ।

বাইকটি শহরের ট্রাফিকের মধ্য দিয়ে খুব সহজেই চলাচল করা যায়। বাইকটি চ্যাসিস এবং ওজনে হালকা হবার কারণে শহর বা হাইওয়েতে খুব সহজে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। তবে আমরা টেস্ট রাইডের সময় এর সর্বোচ্চ পাওয়ার এবং এর সক্ষমতা টেস্ট করে দেখছি। বাইকটি সব কিছুতেই ভালো পারফর্ম করেছে।

আমি এর পারফরম্যান্স দেখে আনন্দিতভাবে অবাক হয়েছিলাম। বাইকটি উচ্চ গতিতে চমৎকার ভাবে স্ট্যাবল ও স্মুথ ছিল এবং ইঞ্জিনটি শক্তিশালী। বাইকটির ইঞ্জিন পারফর্মেন্স একে আরও স্পিডে নিয়ে যেতে পারবে বলে আমরা আশা রাখি।

রেইডার কার্নিয়ের ক্ষেত্রে বেশ ভালো পারফর্ম করেছে। কর্নারে রাইডারকে বেশ ভালো কনফিডেন্স প্রদান করে থাকে। এছাড়া এর টায়ার গ্রীপ বেশ ভালো। ভেজা রাস্তায় কিছুটা কম গ্রীপ প্রদান করলেও সেভাবে বড় কোন সমস্যা হয় না।

TVS Raider 125 বাইকটি এই সেগমেন্টের সবচেয়ে বেশি ফিচার্স সমৃদ্ধ একটি মোটরসাইকেল। বাইকটিতে দেয়া হয়েছে সম্পূর্ণ ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার, যেখানে একই সাথে প্রয়োজনীয় সকল ইনফোরমেশন দেখা যায়। যার মধ্যে রয়েছে আরপিএম, স্পিড, ফুয়েল গজ, গিয়ার ইন্ডিকেটর এবং ট্রিপ।

এছাড়া ফিচার্সের ক্ষেত্রে সবচেয়ে আধুনিক ফিচার হচ্ছে হেলমেট এবং সাইড স্ট্যান্ড ইন্ডিকেটর। এর মানে দাড়াচ্ছে যে হেলমেট না পরলে আপনাকে সিগন্যাল প্রদান করবে।

বাইকটিতে আরও দেয়া হয়েছে ইঞ্জিন কিল সুইচ, পাস লাইট এবং একটি ইউএসবি চার্জিং পোর্ট রয়েছে যা আধুনিক দিনের রাইডারদের সকল চাহিদা পূরণ করবে।

ব্রেকিং পারফরম্যান্স বাংলাদেশের ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ন একটি বিষয়। বিশেষ করে বাংলাদেশের ব্যস্ত রাস্তায়, TVS Raider 125 এই দিকটিতে হতাশ করবে না। বাইকটির সামনের ডিস্ক ব্রেক আপনাকে আত্মবিশ্বাসী করবে, আবার অন্যদিকে পিছনের ড্রাম ব্রেক পর্যাপ্ত ফিডব্যাক প্রদান করে।

মোটরসাইকেলটিতে একটি সিঙ্ক্রোনাইজড ব্রেকিং প্রযুক্তি রয়েছে যা ব্রেক করার সময় আপনাকে আরও আত্মবিশ্বাস প্রদান করবে। এছাড়া বাইকটি নিয়ন্ত্রণে আপনাকে বেশ ভালো ফিডব্যাক প্রদান করবে।

Raider 125 এর সেগমেন্টের অন্যতম সেরা দিক হচ্ছে এর সাসপেনশন। এই বাইকটির সামনের দিকে টিভিএস দিয়েছে প্রচলিত টেলিস্কোপিক হাইড্রোলিক ফর্ক এবং রেয়ারে দেয়া হয়েছে ৫-স্টেপ অ্যাডজাস্টেবল মনোশক এবং গ্যাস চার্জড সাসপেনশন।

এখন যেই প্রশ্নটি আসতে পারে সেটি হচ্ছে মাইলেজ। যেকোন কমিউটার মোটরসাইকেলের জন্য ফুয়েল ইকোনমি একটি গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর। আর Raider 125 এই দিক থেকেও অনেক বেশি এগিয়ে রয়েছে। এই বাইকটি থেকে ৫০/৫২ কিলোমিটার প্রতি লিটার মাইলেজ প্রদান করে থাকেl

সবশেষে, TVS Raider 125 হল বিখ্যাত ভারতীয় মোটরসাইকেল প্রস্তুতকারক টিভিএস এর আকর্ষণীয় মোটরসাইকেল। বাইকটির স্টাইলিশ ডিজাইন, আরামদায়ক এরগনোমিক্স এবং উপভোগ্য পারফরম্যান্স একচেটিয়াভাবে এটিকে বাংলাদেশে ১২৫সিসি অপ্রতিদ্বন্দি করে তুলেছে। আশা করছি বাইকটি সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতা পাবে। ধন্যবাদ। 

Best Bikes

Honda CB Hornet 160R

Honda CB Hornet 160R

Price: 169800.00

Honda CB Hornet 160R ABS

Honda CB Hornet 160R ABS

Price: 255000.00

Honda CB Hornet 160R CBS

Honda CB Hornet 160R CBS

Price: 212000.00

View all Best Bikes

Latest Bikes

Zontes E-Mantis 125

Zontes E-Mantis 125

Price: 0.00

Yamaha Majesty 125

Yamaha Majesty 125

Price: 0.00

Yamaha Majesty

Yamaha Majesty

Price: 0.00

View all Sports Bikes

Upcoming Bikes

Bajaj Pulsar 400

Bajaj Pulsar 400

Price: 0.00

CFMoto 300SS

CFMoto 300SS

Price: 510000.00

Qj motor srk 250

Qj motor srk 250

Price: 0.00

View all Upcoming Bikes