TVS Apache RTR 160 4V বাইকের মালিকানা রিভিউ - সাজ্জাদ

Published On 29-Jul-2020 08:25am , By Shuvo Bangla

আমি সাজ্জাদ । বাসা টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলায়। আমি একজন ছাত্র। আজ আমি আমার ব্যবহৃত বাইক TVS Apache RTR 160 4V বাইকটি সম্পর্কে আমার কিছু অভিজ্ঞতা আপনাদের সাথে শেয়ার করব। বাইকটি আমি এখন পর্যন্ত ১০০০ কিলোমিটার রাইড করেছি।

TVS Apache RTR 160 4V বাইকের মালিকানা রিভিউ - সাজ্জাদ

 tvs apache rtr 160 4v black color bike   

বাবা মায়ের একমাত্র ছেলে হওয়ার কারণে বাইক চালানো শিখতে চাইলে বাবা কখনোই রাজি হতনা। কিন্তু বাইকের প্রতি অফুরন্ত ভালোবাসার কারণে মাকে রাজি করাতে পেরেছি। বাবা না থাকলে মায়ের কাছে যে বাইকের আরেকটি চাবি থাকতো সেটি মা আমার হাতে তুলে দিত।

Click To See TVS Apache RTR 160 4V Bike Price In Bangladesh

আমি বাইক চালানো শিখেছে  Bajaj Discover 135 দিয়ে। এটা আমার বাবার বাইক ছিল। আমি যখন ৮ম শ্রেণীতে পড়ি তখন নিজে নিজেই একটু একটু করে বাইক চালানো শিখেছি বাবার বাইকটি দিয়ে। তারপর এই বাইকটি চালাতাম মাঝে মধ্যে। আমার বেশ কয়েকজন বন্ধুর Suzuki gixxer বাইক আছে। ওগুলো দেখে আমারও Suzuki gixxer বাইকটি কেনার অনেক আগ্রহ ছিল। 

কিন্তু Suzuki gixxer এর ওই মডেলটি বাংলাদেশে আর না আসার কারণে ২য় পছন্দ হিসেবে TVS Apache RTR 160 4V বাইকটিকে বেছে নেই। বাইকটি আমি ১,৮৭,০০০ টাকা দিয়ে ক্রয় করেছি। যদিও TVS Apache RTR 160 4V বাইকটি আমার ২য় পছন্দ ছিল, কিন্তু কেনার পর প্রথম যখন বাইকটিতে বসি এবং রাইড করি আমি সত্যিই এর প্রেমে পরে যাই। এর অসাধারণ থ্রটল রেসপন্স আমাকে মুগ্ধ করে দেয়। তখন মনে হতে থাকে এটাই একটা পারফেক্ট নেকেড স্পোর্টস বাইক বাংলাদেশের রাস্তার কন্ডিশনে।

Click To See TVS Apache RTR 160 4V Test Ride Review In Bangla – Team BikeBD


পারিবারিক কাজের জন্য আমার অনেক জায়গায় যেতে হয়। আর একটা পুরুষের কর্মজীবন গতি সাধারণের তুলনায় ১০ গুণ বাড়িয়ে দেয় একটা বাইক । আর এটাই আমার বাইকিং ভালোবাসার অন্যতম কারণ।

TVS Apache RTR 160 4V এর ফিচারস–

  • 4 valves
  • Oil cooled ইঞ্জিন 159.7 সিসি,
  • Max power 16.8 HP @8000 RPM
  • Max Torque 14.8 NM @6500 RPM
  • Single cylinder

  tvs apache rtr 160 4v headlight   

TVS Apache RTR 160 4V বাইকের জন্য ৬ টি ফ্রি সার্ভিস থাকে। ১টা করিয়েছি ঘাটাইল শো-রুম এর সার্ভিস সেন্টার থেকে  আর ৫টা  সার্ভিস এখন ও বাকি আছে। কোন পার্টস এখনো পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয়নি। এছাড়াও এই পর্যন্ত বড় কোন সমস্যা হয়নি। প্রথম ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করেছি ৪৮০ কিলোমিটার এর পর। এ পর্যন্ত মোট ২ বার ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করি। ইঞ্জিন অয়েল হিসেবে আমি Tvs tru4 synthetic 10w30 ব্যবহার করছি। 

আশানুরুপ পারফরমেন্স পাচ্ছি এই ইঞ্জিন অয়েলে। বিশ্বাস করবেন কিনা জানিনা, প্রথম ৫০০ কিলোমিটার আমি আমার বাইকের মাইলেজ পেয়েছি ৪৫-৪৮ কিলোমিটার প্রতি লিটারে । ৫০০ কিলোমিটার চালানোর পরও এখনও ৪০-৪২ পাচ্ছি।

 tvs apache rtr 160 4v

TVS Apache RTR 160 4V বাইকের কিছু ভালো দিক-

  • কন্ট্রোল আমার কাছে সন্তোষজনক।
  • রেডি পিকআপ রেস্পন্স খুব ভালো।
  • বাইকের লুক আমার কাছে ভাল লাগে।
  • উচ্চ গতিতে ভাইব্রেশন খুবই কম করে।
  • ব্রেকিং সিস্টেম খুব ভালো।
  • যেহেতু বাইকটির সাসপেন্সন খুব ভালো।হাইওয়েতে এর পার্ফরমেন্স অসাধারণ।
  • সিটি রাইড এর পাশাপাশি লং ট্যুরের জন্য বাইকটি পারফেক্ট।

TVS Apache RTR 160 4V বাইকের কিছু খারাপ দিক-

  • বাইককটি ভাঙা রাস্তায় রাইড করতে একটু সমস্যা হয়।
  • বাইক টির ফুয়েল ট্যাঙ্ক ক্যাপাসিটি খুবই কম। মাত্র ১২ লিটার ফুয়েল ধরে এতে।
  • বাইকের পিলিয়ন সিট একদম ছোট। ভারি বা স্বাস্থ্যবান কোনো পিলিয়ন বসাটা একটু অসুবিধাজনক।

tvs apache rtr 160 4v bike

পরিশেষে, বাইকের ব্যাপারে আমার মতামত হলো বাইকটি ৫'৪"-৫'৭" লম্বা ব্যক্তির জন্য পারফেক্ট একটি বাইক। বাংলাদেশের রোড কন্ডিশন এবং এই দুই দিক বিবেচনা করে যদি কেউ কোন ন্যাকেড স্পোর্টস বাইক নিতে চান তাহলে আমি বলবো TVS Apache RTR 160 4V বাইকটি যে কেউ চোখ বন্ধ করে নিতে পারেন। ধন্যবাদ ।   

লিখেছেনঃ মোস্তফা ফারুক সুমন

আপনিও আমাদেরকে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠাতে পারেন। আমাদের ব্লগের মাধ্যেম আপনার বাইকের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করুন! আপনি বাংলা বা ইংরেজি, যেকোন ভাষাতেই আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ লিখতে পারবেন। মালিকানা রিভিউ কিভাবে লিখবেন তা জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন এবং তারপরে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠিয়ে দিন articles.bikebd@gmail.com – এই ইমেইল এড্রেসে।