Yamaha NMAX 155 ABS | ফিচার ও স্পেশিফিকেশন – বাইকবিডি

ইয়ামাহা গত বছর ইন্দোনেশিয়াতে লঞ্চ করেছে Yamaha NMAX 155 স্কুটার । এই স্কুটারটির সাথে দেয়া হয়েছে  ABS braking সিস্টেম । Yamaha NMAX 155 ABS স্কুটারটির ফিচার গুলো পর্যালোচনা করে দেয়া যায় যে স্কুটারটি অনেক বেশি ফিচার সমৃদ্ধ এবং অন্যতম লাক্সারি স্টাইলিশ স্কুটার । চলুন দেখে নেয়া যাক এই স্কুটারটির ফিচার । Yamaha NMAX 155 ABS 2018 – ওভারভিউ Yamaha NMAX 155 স্কুটারটি হচ্ছে ইয়ামাহা এর স্টাইলিশ এবং লাক্সারি স্কুটার । এই স্কুটারটি Yamaha MAX deluxe সিরিজের অন্যতম বড় ও স্টাইলিশ স্কুটার । NMAX ইন্দোনেশিয়াতে প্রথমবারের মত লঞ্চ করা ২০১৫ সালে । তার কিছু দিন পরে স্কুটারটি এশিয়াসহ অস্ট্রেলিয়াতে এক্সপোর্ট করা…

Review Overview

User Rating: Be the first one !

ইয়ামাহা গত বছর ইন্দোনেশিয়াতে লঞ্চ করেছে Yamaha NMAX 155 স্কুটার । এই স্কুটারটির সাথে দেয়া হয়েছে  ABS braking সিস্টেম । Yamaha NMAX 155 ABS স্কুটারটির ফিচার গুলো পর্যালোচনা করে দেয়া যায় যে স্কুটারটি অনেক বেশি ফিচার সমৃদ্ধ এবং অন্যতম লাক্সারি স্টাইলিশ স্কুটার । চলুন দেখে নেয়া যাক এই স্কুটারটির ফিচার ।

yamaha nmax 155 abs feature review

Yamaha NMAX 155 ABS 2018 – ওভারভিউ

Yamaha NMAX 155 স্কুটারটি হচ্ছে ইয়ামাহা এর স্টাইলিশ এবং লাক্সারি স্কুটার । এই স্কুটারটি Yamaha MAX deluxe সিরিজের অন্যতম বড় ও স্টাইলিশ স্কুটার । NMAX ইন্দোনেশিয়াতে প্রথমবারের মত লঞ্চ করা ২০১৫ সালে । তার কিছু দিন পরে স্কুটারটি এশিয়াসহ অস্ট্রেলিয়াতে এক্সপোর্ট করা হয় । ডিজাইন এর কারনে স্কুটারটি অনেক বেশি জনপ্রিয়তা পায় ।

২০১৮ ভার্সনের Yamaha NMAX 155 স্কুটারটি লঞ্চ করা হয়েছে অনেক বেশি আপডেট ও ফিচার সমৃদ্ধ করে । স্কুটারটিতে দেয়া হয়েছে ডুয়েল চ্যানেল এবিএস, মানে হচ্ছে এর সামনে ও পেছনে উভয় চাকাতেই এবিএস সিস্টেম দেয়া হয়েছে । এছাড়া স্কুটারটির বাইরের দিকের চেহারা বা লুকসের ক্ষেত্রেও কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে । স্কুটারটির আরও অনেক ফিচার রয়েছে নিচে সেগুলোর বিস্তারিত বর্ননা দেয়া হলো ।

yamaha nmax 155 abs test ride review

Yamaha NMAX 155 ABS – ডিজাইন এবং স্টাইল

Yamaha NMAX 155 ABS স্কুটারটি ইয়ামার অন্যতম লাক্সারি ও স্টাইলিশ স্কুটার । স্কুটারটি অনেক বড়সর এবং এর হুইলবেস অনেকটা রেগুলার মোটরসাইকেল এর মতই । এই দৈর্ঘ্য অনেক রেগুলার মোটরসাইকেলের মত যার হুইলবেস হচ্ছে  ১৩ ইঞ্চি ।তাই বুঝতেই পারছেন কেন বাইকটি বড় এবং এর লুকস ও ডিজাইন অন্যদব স্কুটার থেকে আলাদা ।

NMAX 155 এই ডিজাইন করা হয়েছে বাল্মিকি ডিজাইন মানে বড়সর টপ টু বট্ম । এর পুরো বডি তে দেয়া হয়েছে গ্লোসি ও ম্যাট প্লাস্টিক প্যানেল । এই সবচেয়ে বড় বাল্মিক পার্ট হচ্ছে এর সামনের দিক, এর হেডল্যাম্প যেটা এর ঘাড়ের কাছে এসেম্বল করা হয়েছে । এর বাকি বডি পার্ট বিশেষ ভাবে এর রেয়ার পার্টটিও সুন্দর ভাবে ডিজাইন করা যা এর গ্রাভিটি ডিজাইনের সাথে সুন্দর ভাবে ম্যাচ করে ।

এলিগেন্ট ডিজাইন ও আন্ডারবোন ফ্রেম

এন ম্যাক্স ১৫৫ স্কুটারটির ডিজাইন করা হয়েছে আন্ডারবোন ফ্রেম দিয়ে, যেখানে ইঞ্জিন দেয়া হয়েছে সিটের ঠিক নিচেই । এখানে রাইডারের ফুট রেস্ট অন্যান্য স্কুটারের মত নেকেড নয় । স্পেসটি ঢেকে দেয়া হয়েছে স্পিন দিয়ে এবং সাথে দেয়া হয়েছে ম্যাট প্যানেল । স্পাইনের ভিতর দিয়ে দেয়া হয়েছে ফুয়েল ট্যাঙ্ক এবং এর উপর কভার দিয়ে দেয়া হয়েছে যেখানে এর টপ বা মুখ রাখা হয়েছে ।

yamaha nmax 155 abs seat storage system

এখানে রাইডারের দুপাশে অনেক খালি জায়গা রাখা হয়েছে যেখানে রাইডার তার পা রাখতে পারবেন । এখানে আকর্ষনীয় দিক হচ্ছে রাইডার খুব সুন্দর ভাবে তার পা দুটিও লম্বালম্বি বা সমান্তরালে রাখতে পারবেন । এটি রাইডার কে রাইড করার সময় রাইডার কমফোর্ট পাবেন ।

সিট বেশ বড় এবং সিঙ্গেল সিট, এটি অনেক প্রশস্ত ও কার্ভি টাইপ । সামনের দিকে স্কুটারটির ডিজাইন অনেক গর্জিয়াস, যেমন ওডোমিটার, স্টিয়ারিং, ইগনিশন কি হোল এবং ইউটিলিটি বক্স ।

স্কুটারটির অন্যতম দিকে হচ্ছে এর ডাবল পিট হেড ল্যাম্প যার সাথে দেয়া হয়েছে এলএইডি ডিআরএল । হেড ল্যাম্প এর পাশেই দেয়া হয়েছে বড় দুটি ইন্ডিকেটর যা বডির সাথেই ম্যাট করে বসানো হয়েছে । অপর দিকে অন্ধকারে বাইকএর সামেনের দিকে অনেক এক্স শেপড দেখা যায় ।

এবার আশা যাক রেয়ার পার্ট এ, রেয়ার পার্টও সব দিকে থেকে প্লাস্টিক প্যানেল দিয়ে মোড়ানো । রেয়ার ব্যাক প্যানেল এ টেল লাইটসহ সব কিছু দিয়ে মাউন্ট করা হয়েছে । স্কুটারটির সিটের নিচে প্রায় ২৩ লিটার পর্যন্ত স্টোরেজ রাখা যায় । এর ইন্সুট্রুমেন্ট প্যানেলে আরও ছোট দুটি পকেট রয়েছে যেখানে আপনি অনেক কিছু ক্যারি করতে পারবেন ।

সবশেষে আসা যাক এক্সহস্ট এর ব্যাপারে, এটি খুব সুন্দর ব্লোটেড ভাবে ডিজাইন করা । এর সাথে ম্যাচ করে এটিও কাভার করা হয়েছে ম্যাচিং ম্যাটেড প্যানেল দিয়ে । স্কুটারটির কে বাকি সব দিক গুলো খুব সুন্দর ভাবে ম্যাট ফিনিশিং দেয়া হয়েছে এবং কভার করা হয়েছে প্যানেল দিয়ে ।

yamaha nmax 155 abs wheel brake suspension system

Yamaha NMAX 155 ABS – হুইল, ব্রেক ও সাসপেনশন

NMAX 155 ABS হচ্ছে ইয়ামাহার এর ম্যাক্স সিরিজের নতুন আপডেট ভার্সন । এর ব্রেক, সাসপেনশন এবং হুইলের ক্ষেত্রে নতুন ও ট্রেন্ডি সব ফিচার যুক্ত করা হয়েছে ।

এই স্কুটারটির হুইলবেস হচ্ছে ১৩ ইঞ্চির এবং চাকায় দেয়া হয়েছে এলয় রিম । এর ফ্রন্টে যুক্ত করা হয়েছে ১১০মিমি এবং রেয়ারে যুক্ত করা হয়েছে ১৩০মিমি টায়ার । উভয় চাকায় ই হচ্ছে টিউবলেস টায়ার ।

ব্রেকিং সিস্টেম এর ক্ষেত্রে যদি বলি তবে এটি অনেক আপডেটেড ফিচার দিয়ে সমৃদ্ধ করা হয়েছে । দুটি ব্রেকই ডিস্ক ব্রেক এবং এদের ডায়ামিটার একই, এদের ডায়ামিটার হচ্ছে ২৩০মিমি । এছাড়া আরও যুক্ত করা হয়েছে এবিএস(এন্টিলক ব্রেকিং সিস্টেম), যা এর ব্রেকিং কে আরও উন্নত করেছে ।

সাসপেশন এর ক্ষেত্রে আরও এগিয়ে রেখেছে এই স্কুটারটিকে অন্য সকল রেগুলার স্কুটারের চেয়ে । ফ্রন্ট বা সামনের দিকে দেয়া হয়েছে টেলিস্কোপিক ফর্ক হাড্রোলিক সাসপেনশন । রেয়ারের ক্ষেত্রে দেয়া হয়েছে ইউনিট সুইং টাইপ, তবে একটি বিপরীতে এখানে দুটি ইউনিট ব্যবহার করা হয়েছে ।

এছাড়া রেয়ার সাসপেনশনের সাথে যুক্ত করা হয়েছে গ্যাস ক্যানিস্টার । তাই বলা যায় ইয়ামাহা এন ম্যাক্স ১৫৫সিসি এবিএস পুরোপুরি আপডেটেড এবং ফিচার সমৃদ্ধ একটা বাইক ।

yamaha nmax 155 abs top speed digital odo feature

Yamaha NMAX 155 ABS – হ্যান্ডেলিং ও কন্ট্রোলিং

Yamaha NMAX 155 স্কুটারটি হচ্ছে একটি আরবান স্কুটার, যার সাইজ ও ডাইমেনশন হচ্ছে একটি রেগুলার মোটরসাইকেল এর মত । এর হুইল বেস অন্যান্য রেগুলার বা কমিউটার স্কুটার থেকে বড় । তাই রাইডিং ও হ্যান্ডেলিং এর ক্ষেত্রে অনেক বেশি কনফিডেন্স পাওয়া যায় ।

রাইডিং ও হ্যান্ডেলিং এর ক্ষেত্রে, স্কুটারটি অনেক সহজে রাইড করা যায় এবং কোন ধরনের ঝামেলায় পরতে হয় না । পুরো স্কুটারটি অটোমেটিক এবং V-Belt transmission দ্বারা পরিচালিত । স্কুটারটি রাইড করা খুব ই সহজ, কারন এতে ক্লাচ বা গিয়ার পরিবর্তনের কোন সমস্যা নেই । এছাড়া এবিএস ব্রেকিং এর কারনে স্কুটারের দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভবনা অনেক কমিয়ে আনা হয়েছে ।

সিটিং এবং রাইডিং মুড

সিটিং এর দিক থেকে স্কুটারটি সম্পূর্ন রূপে আপ রাইট পজিশনে দেয়া । এর আকর্ষনীয় দিক হচ্ছে আপনি চাইলে সিটিং ও রাইডিং পজিশনে ভিন্নতা রয়েছে । স্কুটারটির সিট অনেক বড় এবং প্রশস্ত । শুরুর দিকে একটু চাপা কিন্তু পিছনের দিকে সিটটি অনেক প্রশস্ত ।

রাইডার যদি চান তবে পিছনের দিকে বসেও রিল্যাক্সে রাইড করতে পারবেন । যখন ট্রাফিক জ্যামে বসে থাকবেন তখন সামনের দিকে বসে আপনি খুব সুন্দর ভাবে স্কুটারটি কন্ট্রোল করতে পারবেন । কম উচ্চতার লোকেরা খুব সহজেই স্কুটারটি রাইড করতে পারবেন ।

yamaha nmax 155 abs riding handling controlling feature

এখানে রাইডারের ফুট রেস্ট পেগ খুব পার্টটি অনেক বড় । এটি ফ্ল্যাটেড করা হয়েছে সিটের কাছে এবং সমান্তরালে ভার্টিক্যালি রাখা হয়েছে সামনের দিকে । তাই রাইডার চাইলে খুব সহজে তা পা সমান্তরাল বা লম্বালম্বি ভাবে রেখে রাইড করতে পারবেন । তাই যাদের হাইট বেশি তারও খুব সহজে ও আরামদায়ক ভাবে রাইড করতে পারবেন ।

পিলিয়ন সিটের সিটিং এর‍্যাঞ্জমেন্ট অনেক বেশি আরামদায়ক । পিলিয়ন সিটটি অনেক বেশি প্রশস্থ ও বড় এবং সেই সাথে একটা বড় গ্রেইব রেইল দেয়া হয়েছে বসার সুবিধার জন্য । এছাড়া পিলিয়ন সিটের ফুটপেগ সঠিক জায়গাতেই দেয়া হয়েছে, এতে আমরা তেমন কোন অসুবিধা হবে বলে মনে হয় না ।

এবার আসা যাক স্কুটারটির ওজন প্রসঙ্গে, স্কুটারটির বডি বড়সর হওয়ার পরও স্কুটারটি অনেক হালকা । স্কুটারের সবচেয়ে ভাল দিক হচ্ছে এর ওয়েট ডিস্ট্রিবিউশন হচ্ছে মাঝখানের দিকে । ১২৭ কেজি ওজনের সাথে হুইল, ব্রেক এবং সাসপেনশনের সম্বলিত করার ফলে এর কন্ট্রোলিং ও হ্যান্ডেলিং করা সহজ হয়ে যাবে ।

Yamaha NMAX 155  ABS – ইঞ্জিন ফিচার ও স্পেসিফিকেশন

ইঞ্জিনের ক্ষেত্রে স্কুটারটিতে যুক্ত করা হয়েছে ১৫৫সিসি সলিড হরাইজন্টাল এলাইন্ট ইঞ্জিন । ইঞ্জিনটি হচ্ছে সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক, লিকুইড কুলড ইঞ্জিন । ইঞ্জিনটিতে রয়েছে SOHC, ফোর ভালভ এর সাথে VVA এর মানে হচ্ছে Variable Valve Actuation সিস্টেম ।

ইঞ্জিনের ট্রান্সমিশন সিস্টেম হচ্ছে V-Belt অটোমেটিক টাইপ । যেহেতুম স্কুটারটি পুরোপুরি অটোমেটিক তাই ক্লাচ বা গিয়ার পরিবর্তনের কোন ঝামেলা নেই । শুধু মাত্র থ্রটল টুইস্ট করলেই এক্সেলারেশন এর মাধ্যমে স্কুটারটি রাইড করা সম্ভব ।

এখন আসা যাক VVA সিস্টেম নিয়ে, যা ব্লু কোর ইঞ্জিনে এক্টিভেট হয় ৬,০০০ rpm এরপর থেকে । এটি কাজ করে থেকে ফুয়েল ইফিশিয়েন্সি বাড়ায় এবং পাওয়ার ডেলিভারি স্মুথ করে থাকে । উচ্চ কম্প্রেশন এর ইঞ্জিন সঠিক ভাবে পাওয়ার ডেলিভারির নিশ্চয়তা দেয় । ইঞ্জিন থেকে সর্বোচ্চ 14.9BHP এবং 14.4NM টর্ক পর্যন্ত শক্তি উৎপাদনে সক্ষম ।

সর্বশেষ বলা যায় যে, এই স্কুটারটির হালকা ওজন ও এরো ডায়নাকি ডিজাইনের কারনে রাইড করা সহজ । ১২৭ কেজি ওজন নিয়ে খুব দ্রুত ও ফাস্ট রাইড করা যায় । ভিভিএ ইঞ্জিনের কারনে অনেক বেশি ফুয়েল ইফিশিয়েন্ট । সবমিলিয়ে বলা যায় যে ইয়ামাহা এন ম্যাক্স ১৫৫ এবিএস স্কুটারটি একটি প্যাকেজ স্কুটার ।

yamaha nmax 155 abs feature

Yamaha NMAX 155  ABS – স্পেসিফিকেশন

Specification

Yamaha NMAX 155 ABS

EngineSingle Cylinder, Four Stroke, Liquid Cooled,

SOHC with VVA,  4-Valve Engine

Displacement155.1cc
Bore x Stroke58.0mm x 58.7mm
Compression Ratio10.5:1
Maximum Power14.9 BHP (11.1KW) @ 8,000RPM
Maximum Torque14.4NM @ 6,000RPM
Fuel SupplyElectronic Fuel Injection
IgnitionTCI
Starting MethodElectric Start
Clutch TypeAutomatic
LubricationWet Sump
TransmissionV-Belt Automatic

Dimension

Frame TypeUnderbone Frame
Dimension (LxWxH)1,955mm x 740mm x 1,115mm
Wheelbase1,350 mm
Ground Clearance135 mm
Saddle Height765 mm
Weight127 Kg
Fuel Capacity6.6 Liters
Engine Oil

Wheel, Brake & Suspension

Suspension (Front/Rear)Telescopic Fork, 100mm Travel

/ Unit Swing Double Shock Absorber, 90mm Travell

Brake system (Front/Rear)230 mm Disk with Single Piston Clipper

/ 230 mm Disk with Single Piston Clipper

Tire size (Front / Rear)Front: 110/70-13M/C

Rear: 130/70-13 M/C

Both Tubeless

Battery12V, MF
Head lampLED Headlamp
SpeedometerDigital Display ODO

*All the specifications are subject to change upon company rules, policy, offer & promotion. BikeBD is not liable for the changes.

Yamaha NMAX 155 ABS 2018 – এলিগেন্ট এবং ডায়নামিক

এখন বলা যায় যে, ফিচার ও স্পেসিফিকেশন সম্পর্কে আপনারা একটি বিশদ ধারনা পেয়েছেন । আমরা চেষ্টা করলাম আপনাদের সমানে স্কুটারটির সারাংশ তুলে ধরার ।

  • ট্রেন্ডি, স্টাইলিশ, ডায়নামিক এবং লাক্সারিয়াস লুকস ও ডিজাইন
  • প্যানেল ম্যাটেড লাইট ও ইন্ডিকেটরস
  • আকর্ষনীয় হেড লাইট ও এলইডি ডিআরএল
  • নতুন ওডো প্যানেল
  • আরামদায়ক রাইডিং পজিশন
  • পা রাখার এর জন্য অনেক জায়গা
  • ওজনে হালকা ও সহজে কন্ট্রোল করা যায়
  • ১৫৫সিসি লিকুইড কুলড ব্লু কোর ইঞ্জিন
  • ভিভিএ ফুয়েল ইফিসিয়েন্সি নিশ্চিত করে
  • প্রশস্ত টায়ার ও এবিএস ব্রেকিং সিস্টেম এবং ডিস্ক ব্রেক
  • সাইড স্ট্যান্ড ইন্ডিকেটর
  • ফুয়েল ট্যাঙ্ক পজিশন
  • প্রাইস ৪,৯০,০০০/- টাকা

এসিআই মোটরস খুব শীঘ্রই স্কুটারটি বাংলাদেশে নিয়ে আসতে যাচ্ছে । স্কুটারটির প্রিবুকিং ও নেয়া হবে । সেই সাথে জানা যাবে স্কুটারটির দাম । তাই আশা করা যায় আমরা খুব শীঘ্রই একটি স্টাইলিশ স্কুটার পেতে যাচ্ছি বাংলাদেশে ।

এই ছিল আমাদের Yamaha NMAX 155 ABS এর ফিচার রিভিউ । স্কুটারটি সহ ও অন্যান্য আপডেট পেতে আমাদের ওয়েব সাইটি ভিজিট করতে থাকুন । ধন্যবাদ সবাইকে ।

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*