TVS Apache RTR 150cc মালিকানা রিভিউ লিখেছেন – মোঃ রুবেল

আমি মোঃ রুবেল । আজ আমি আপনাদের সাথে আমার TVS Apache RTR 150cc বাইকটির সম্পর্কে ছোট একটা রিভিউ দিতে যাচ্ছি । আমি ব্যবসা করি । ব্যবসার কাজে আমাকে অনেক জায়গায় যেতে হয় । তাই বাইকটি আমার প্রতিদিনের নিত্য সঙ্গী হয়ে উঠেছে ।   কেন আমি এই বাইকটি নিলাম?? কারন TVS Apache RTR 150cc সেগমেন্ট এর ভিতর বাইকটির লুকিংটা আমার নজর কেড়ে ছিল । তাছাড়া বাইকটি নিয়ে অনেকের কাছেই বেশ ভালো কথা শুনেছি । এছাড়া বাইকটির দামও খুব বেশি নয়। তাই বাইকটি নেওয়া। TVS Apache RTR 150cc Vs Bajaj Pulsar 150 TVS Apache RTR 150cc কিনেছি মাত্র ৪ মাস হলো । বাইকটি…

Review Overview

User Rating: Be the first one !

আমি মোঃ রুবেল । আজ আমি আপনাদের সাথে আমার TVS Apache RTR 150cc বাইকটির সম্পর্কে ছোট একটা রিভিউ দিতে যাচ্ছি । আমি ব্যবসা করি । ব্যবসার কাজে আমাকে অনেক জায়গায় যেতে হয় । তাই বাইকটি আমার প্রতিদিনের নিত্য সঙ্গী হয়ে উঠেছে ।

tvs apache rtr 150cc user review

 

কেন আমি এই বাইকটি নিলাম?? কারন TVS Apache RTR 150cc সেগমেন্ট এর ভিতর বাইকটির লুকিংটা আমার নজর কেড়ে ছিল । তাছাড়া বাইকটি নিয়ে অনেকের কাছেই বেশ ভালো কথা শুনেছি । এছাড়া বাইকটির দামও খুব বেশি নয়। তাই বাইকটি নেওয়া।

TVS Apache RTR 150cc Vs Bajaj Pulsar 150

TVS Apache RTR 150cc কিনেছি মাত্র ৪ মাস হলো । বাইকটি নিয়ে আমি ইতিমধ্যে ঢাকা ও ঢাকার বাইরে ভ্রমন করেছি । বাইকটি নিয়ে আমি যখন কাজের জন্য বের হই তখন আমার অনেক ভালো লাগে । বাইক এ পিলিয়ন নিয়ে চলার সময় আমার কাছে কোন রকম সমস্যা অনুভব হয়নি । তবে অনেক এ অনেক কথা বলে । তবে আমি বলব বাইকটির ব্রেকিং সিস্টেম আমার কাছে বেশ ভালোই মনে হয়েছে ।

tvs apache rtr 150cc user

 

যখন আমি স্পিড ৯০+ রেখে ব্রেক করি তখনও  স্লিপ কাটেনি। বাইকটির সাউন্ড কোয়ালিটি অনেক স্মুথ। লং ট্যুর এর সময় হাল্কা ব্যাক পেইন অনুভব হয়। তাছাড়া বাইক টি ৯৫+ স্পিড ওঠার পরে ভাইব্রেশন ফিল হয়। আমি যদিও বাইক এ ১১০ স্পিড উঠাতে সক্ষম হই । বাইকটিতে যদি রেয়ার টায়ার ১২০ সেকশন এর ব্যবহার করা হতো, তাহলে হয়ত স্লিপ কাটার সম্ভাবনা কম থাকতো ।

বাইক এর টায়ার এর সাইজ সামনের চাকা ৯০/৯০-১৭ এবং রেয়ার টায়ার ১১০/৮০-১৭ । বাইকের দুটি টায়ার টিউবলেস টায়ার ।  তাছাড়া বাইক এর লাইটিং সিস্টেম মোটামুটি । রাত্রে লাইটিং সিস্টেম এর জন্য অনেক সময় বিপদ এ পরতে হয়। কেননা দূর পথে বা হাইওয়ে তে খুব একটা আলো দেখা যায় না । অবশ্য কোম্পানি চাইলে আরো ভালো লাইট দিতে পারতো। তাছাড়া বাইকের হর্ন বেশ ভালো।

rtr 150 bike bd

 

TVS Apache RTR 150cc এ আমি ৩জন নিয়েও চালিয়েছি, তাতে কোন রকম সমস্যা হয়নি। বাইকটিতে ১৪৯.৭সি সি এর ইঞ্জিন রয়েছে বাইক এর সিসি অনুযায়ী বাইক এর ওজন আমার কাছে ঠিকই মনে হইছে। বাইক এর ওজন ১৩৭ কেজি । তবে আরও একটু ওজন দেয়া হলে ভাল হতো । বাইকটি কিক এবং সেলফ স্টার্ট দুটোই দেয়া আছে ।

TVS Apache RTR 150cc বর্তমানে ৪০০০+কি মি এখন চলে ।  এখন পর্যন্ত আমার বাইকে ক্লাসপ্লেট বদলাতে হয়নি। বাইকের হাইড্রোলিক ব্রেকটা ভালো তবে অতিরিক্ত স্পিড এ স্লিপ করে ।  আমার কাছে বাইকের ব্যাক লাইটটি বেশি ভালো লাগে। আমি বাইকে সব সময় Mobil 4T ব্যবহার করছি। বাইকের সাসপেনশন অনেক মজবুত ও শক্তিশালী। ভাংগা রাস্তাতে এর ভালই ফিডব্যাক পেয়েছি। তবে বেশ ঝাকি অনুভব হয়, আমি আমার বাইক এ কখনই খোলা তেল ব্যবহার করিনি । সব সময় অকটেন ব্যবহার করেছি।

rtr 150cc price in bangladesh

 

বাইক এ ডিজিটাল মিটার রয়েছে যেখানে স্পিড এবং ফুয়েল দেখা যায় । বাইকটি তে ১৬ লিটার তেল ভরা নেয়া । বাইকটি ৫ গিয়ার সংযুক্ত করা হয়েছে । বাইক এ সবসময় একই গ্রেডের মবিল ব্যবহার করার কারনে,বাইকটি থেকে ভালো ফিডব্যাক পেয়েছি ।

বাইকটির স্টাইল আইকন অনেক আকর্ষণীয়। তবে বেশ কিছুক্ষন চলার পর বাইকের ইঞ্জিন অনেক গরম হয়ে যায় । আমার জানা মতে ১৩০ এই বাইকের টপ স্পিড । তবে সাবধানতার সাথে বাইক চালানো ভালো। বাইকের সাসপেনশন ভালো। যার কারনে জন্য ২জন নিয়ে বাইক রাইড করতে কোনো রকম সমস্যা হয় নাহ । অবশেষে আমি এটাই বলতে চাই যে TVS Apache RTR 150cc বাইকটি অসাধারণ ও খুব বেশি আরামদায়ক । সকল কে রিভিউটি পড়াবার জন্য ধন্যবাদ ।

 

 

লিখেছেনঃ মোঃ রুবেল

 

 

আপনিও আমাদেরকে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠাতে পারেন। আমাদের ব্লগের মাধ্যেম আপনার বাইকের সাথে আপনার অভিজ্ঞতা সকলের সাথে শেয়ার করুন! আপনি বাংলা বা ইংরেজি, যেকোন ভাষাতেই আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ লিখতে পারবেন। মালিকানা রিভিউ কিভাবে লিখবেন তা জানার জন্য এখানে ক্লিক করুন এবং তারপরে আপনার বাইকের মালিকানা রিভিউ পাঠিয়ে দিন articles.bikebd@gmail.com – এই ইমেইল এড্রেসে।

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*