হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার কম্পারিজন রিভিউ

কমিউটার মোটরসাইকেল সেগমেন্টে আমাদের দেশে হিরো মোটরসাইকেল বেশ বড় বাজার দখল করে আছে। তাদের মোটরসাইকেলগুলো পাওয়ার, ইকোনমি, ও পার্ফমেন্সের মোটামুটি ব্যলান্সড-প্যাক বিধায় তাদের জনপ্রিয়তাও বেশি। তাই আজ আমরা হিরোর ১২৫সিসির দুটো মোটরসাইকেলের কম্পারিজন রিভিউ নিয়ে এসেছি। তো চলুন, আমাদের হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার কম্পারিজন রিভিউ আলোচনায়।

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার – লুক ও ডিজাইন

হিরো ইগনাইটর আর গ্ল্যামার দুটো বাইকই মূলত: ডিজাইন আর ফিচারে কমিউটার সেগমেন্টের বাইক। আর তাই মোটরসাইকেল দুটোতে রয়েছে সাধারন প্রাত্যহিক চলাফেরার উপযোগী সমস্ত ফিচার। তবে আধুনিক সময়ের সাথে তাল রেখে এতে আরো রয়েছে স্পের্টি লুকের এক্সটেরিয়র।

হিরোর ইগনাইটর মোটরসাইকেলটি সম্পূর্ন নতুন লুকের একটি মোটরসাইকেল, যা কিছুটা শার্প ও এ্যাগ্রেসিভ ডিজাইনের। আর এই মডেলটি হিরোর কমিউটার সিরিজে বলা যায় মোটামুটি নতুন একটি সংযোজন। তবে এটি কিছুটা ভিন্ন টাইপের কমিউটার ইউজারদের ফোকাস করেই ডিজাইন করা।

তো এই বাইকটির আগাগোড়াই ডুয়্যাল-টোন কালার ও গ্রাফিক্সে সমন্বয় করা। এর হেডল্যাম্পটি ডেডিকেটেড পাইলট-ল্যাম্পসহ ডিজাইন করা। আর এর ওডোটি এ্যানালগ-ডিজিটালের একটি কম্বো-ইউনিট। আর এর ফুয়েল ট্যাঙ্কটিও আর এয়ার-স্কুপসহ স্পোর্টি ও বেশ ফোলানো ধরনের।

এর সাইড-প্যানেলগুলো বেশ কম্প্যাক্ট ও এর ধারালো ডিজাইনের এলইডি টেইল-লাম্পের সাথে সমন্বয় করা। আর সিটটা একটি সেগমেন্টেড সিঙ্গেল-পিস সিট, যা একটি শক্তপোক্ত গ্র্যাবরেইল দিয়ে সাপোর্ট দেয়া। তো নতুন ডিজাইনের এ্যালয়-রিমসহ ইগনাইটর বেশ আকর্ষনীয় ও স্পের্টি ডিজাইনের।

আর অন্যদিকে হিরো গ্ল্যামার বাইকটি কিছুটা আগের মডেল যা অনেকটা পথ সাফল্যের সাথে পাড়ি দিয়ে এসেছে। তবে গত কয়েক বছরে এর এক্সটেরিয়র ডিজাইনে বেশ নতুন কিছু পরির্বতন চলে এসেছে। আর সেইসাথে এটি বেশ চমৎকার, দৃষ্টিনন্দন ও কম্প্যাক্ট ডিজাইনের একটি বাইক।

তো হিরো গ্ল্যামার কিছুটা বড়সড় হেডল্যাম্পসহ বেশখানিকটা ফাঁপানো ডিজাইনের। এর ফুয়েল-ট্যাঙ্কেও রয়েছে নতুন সাইড-স্কুপ। আর এটিও মাল্টি-টোন কালার ও গ্রাফিক্সে সমন্বয় করা। আর বাইকটির ওডোটিও এ্যানালগ-ডিজিটাল কম্বো-ইউনিট। এর সাইড-প্যানেলগুলো বেশ সুপরিসর আর সিটটিও সেগমেন্টেড সিঙ্গেল-পিসের। আর এইসবের সমন্বয়ে গ্ল্যামার বেশ সাফল্যের সাথেই বেশি কিছু বছর অতিক্রম করে এসেছে।

ফ্রেম, হুইল, ব্রেক ও সাসপেনশন সিস্টেম

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার বাইকদুটো একই ইঞ্জিন-ডিসপ্লেসমেন্টের দুটো আলাদা বাইক। আর এগুলি মোটামুটি একই ধরনের কাষ্টমার রেঞ্জ ফোকাস করে ডিজাইন করা। তবে অবশ্যই তাতে আলাদা আলাদা বিশেষত্ব সমন্বয় করা হয়েছে।

এখানে হিরো ইগনাইটর বাইকটি একটি সেমি-ডাবল ক্রেডল ফ্রেমে আর গ্ল্যামার টুবুলার-ক্রেডল ফ্রেমে তৈরি। তো দুটো ফ্রেমই মোটামটি একই ধরনের হলেও তাদের ইঞ্জিন-প্লেসমেন্ট এক নয়। আর সেইসাথে এর অন্যান্য ডাইমেনশনও এক নয়। তবে মোটরসাইকেলদুটোর হুইল সেটআপে কিছু অমিল থাকলেও ব্রেক ও সাসপেনশনে অনেকটাই মিল রয়েছে।

এখানে ইগনাইটরে রয়েছে বাকানো ও জোড়াকৃত ১০-স্পোক এ্যলয় রিম আর টিউবলেস টায়ার। আর অপরদিকে গ্ল্যামারে রয়েছে সলিড ৫-স্পোক এ্যালয় রিম ও টিউবলেস টায়ার। দুটো বাইকেই রয়েছে সামনের চাকায় হাইড্রলিক ডিস্ক ব্রেক, আর পেছনে ড্রাম টাইপের ব্রেক। তবে তাদের সামনের চাকায় ড্রাম-ব্রেক অপশনও রয়েছে।

আর সাসপেনশনের ক্ষেত্রে দুটো মডেলেই একইধারনের হাইড্রলিক টেলিস্কোপিক-ফর্ক সাসপেনশন রয়েছে। আর তাদের পেছনে রয়েছে ৫-ধাপে এ্যাডজাস্টেবল ডুয়াল-সাসপেনশন। এই সাসপেনশনগুলো মুলত: স্প্রিং-লোডেড সিলড হাইড্রলিক সাসপেনশন যা বাইকদুটোর সুইংআর্মের সাথে সংযুক্ত।

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার

রাইডিং ও হ্যান্ডেলিং ফিচার

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার বাইকদুটো মুলত: মোটামুটি একই ধরনের রাইডিং ও হ্যান্ডেলিং ফিচারযুক্ত। তবে সার্বিকভাবে তাদের ফিচারে বাস্তবিক কিছু আলাদা সত্বা রয়েছে। তো দুটো বাইকই তাদের হ্যান্ডেলবার ও অন্যান্য কন্ট্রোলবারসহ আপরাইট প্রোফাইলের। আর সেইসাথে তাদের সিটের বৈশিষ্ট্যও অনেকটাই একই। তবে হিরো গ্ল্যামারের পরিসর তুলনামুলকভাবে কিছুটা কম্প্যাক্ট হলেও ইগনাইটরে তা সুপরিসর।

হিরোর এই দুটো বাইকই ৪-স্পিড গিয়ার নিয়ন্ত্রিত। আর তাতে কিক-ষ্টার্টারের সাথে সাথে ইলেকট্রিক স্টার্টিং ফিচার রয়েছে। তবে হিরো ইগনাইটরে কিছুটা বাড়তি পাওয়ার ডেলিভারী আর ফুয়েল-ইকনোমিক i3S ফুয়েল-সেভিং ফিচার রয়েছে। আর এরসাথে আরো রয়েছে তুলনামুলক কম ওজন ও বেশি গ্রাউন্ড-ক্লিয়ারেন্স।

তবে হিরো গ্ল্যামারে রয়েছে ইকনোমিক পারফর্মেন্স, ফুয়েল ইকনোমি আর বেশি ফুয়েল ক্যাপসিটি। আর সেইসাথে রয়েছে বিগত অনেক বছরের প্রমানিত নিরবিচ্ছিন্ন পার্ফর্মেন্সের নিশ্চয়তা। তো সবমিলিয়ে দুটো বাইকেরই রাইডিং ও হ্যান্ডেলিং চমৎকারভাবে সমন্বয়কৃত।

ইঞ্জিন ফিচার ও পারফর্মেন্স

হিরো ইগনাইটর ও হিরো গ্ল্যামার, এই দুটো বাইকেই একই ডিসপ্লেসমেন্টের ইঞ্জিন ব্যবহার করা হয়েছে। দুটোই ৫২.৪মিমিX৫৭.৮মিমি বোর-স্ট্রোকের ১২৪.৭সিসির ইঞ্জিন। আর তাদের বেসিক ফর্মেশনও মোটামুটি একই। দুটোই সিঙ্গেল-সিলিন্ডার, এয়ার-কুলড, ফোর-স্ট্রোক ইঞ্জিন। আর দুটোতেই রয়েছে ওএইচসি ২-ভালভ ও কার্বুরেটর ফুয়েল-ফিডিং সিস্টেম। আর সেইসাথে ইঞ্জিনদুটতে রয়েছে কিক ও ইলেকট্রিক স্টার্টার।

আর এতোসব মিল থাকার পরও কিন্তু ৪-গিয়ারের এই ইঞ্জিনদুটির ক্র্যাঙ্ক-এ্যালাইনমেন্ট পুরোপুরি ভিন্ন। হিরো ইগনাইটরের ইঞ্জিনটি ভাটিক্যাল-এলাইনড ইঞ্জিন, যা পাওয়ার ও এক্সিলারেশন ওরিয়েন্টেড। আর গ্ল্যামারের ইঞ্জিনটি হলো মুলত: ফুয়েল-ইকোনমিক হরাইজন্ট্যাল এলাইনড ইঞ্জিন।

সুতরাং অনেক মিল থাকা সত্বেও দুটো ইঞ্জিনই আলাদা স্ট্র্যাকচার ও টেকনিক্যাল ক্যারেক্টারের। হিরো ইগনাইটরের ইঞ্জিনটি সর্বোচ্চ ৮.৩ কিলোওয়াট পাওয়ার ও ১১এনএম টর্ক উৎপাদন করতে পারে। আর অপরদিকে হিরো গ্ল্যামারের ইঞ্জিন সর্বোচ্চ ৬.৭২কিলোওয়াট পাওয়ার ও ১০.৩৫এনএম টর্ক উৎপাদন করে। আর সেইসাথে আলাদা কম্প্রেশন রেশিওর ইঞ্জিনদুটোর বাস্তবিক অন-রোড পারফর্মেন্সেও অনেকটাই ভিন্ন।

Hero Ignitor VS Hero Glamour Specification Comparison

Specification

Hero Ignitor 125

Hero Glamour 125

EngineSingle Cylinder, Four Stroke,

Air Cooled, OHC Engine

Single Cylinder, Four Stroke,

Air Cooled, OHC Engine

Valve SystemTwo ValveTwo Valve
Displacement124.7cc124.7cc
Bore x Stroke52.4mm x 57.8mm52.4mm x 57.8mm
Compression Ratio10.0:19.1:1
Maximum Power8.3kW (11BHP) @7,500RPM6.72kW (9BHP) @7,000RPM
Maximum Torque11NM @6,500RPM10.35NM @4,000RPM
Fuel SupplyCarburetorCarburetor
IgnitionDigital DC CDI Ignition System – AMIDC – Digital CDI with TCIS
Starting MethodKick & Electric StartKick & Electric Start
Clutch TypeWet, Multiple-discWet, Multiple-disc
LubricationWet SumpWet Sump
Transmission4 Speed, Pattern N-1-2-3-44 Speed, Pattern N-1-2-3-4

Dimension

Frame TypeSemi-Double Cradle TypeTubular Cradle Type
Dimension (LxWxH)2,023mm x 766mm x 1,091mm2,005mm x 735mm x 1,070mm
Wheel Base1,262mm1,262mm
Ground Clearance159mm150mm
Saddle HeightNot Found790mm
Weight (Kerb)127Kg125Kg (Kick), 129Kg (Self)
Fuel Capacity:11 Liters (Reserve 1.4 Liters)13.6 Liters (Reserve 1 Liter)

Wheel, Brake & Suspension

The suspension (Front/Rear)Telescopic Hydraulic Fork/

5-Step Adjustable Hydraulic Shock Absorbers

Telescopic Hydraulic Fork/

5-Step Adjustable Hydraulic Shock Absorbers

Brake system (Front/Rear)240mm Disk

/ 130mm Drum

240mm Disk, Optional 130mm Drum

/ 130mm Drum

Tire size (Front / Rear)Front: 80/100-18

Rear: 90/90-18

Both Tubeless

Front: 2.75-18

Rear: 3.0-18

Both Tubeless

Electrical & Other
Battery12V 3Ah (MF)12V 3Ah (MF)
Headlamp12V 35/35W12V 35/35W
Tail LampLED LampBulb
SpeedometerAnalog Speedometer with Digital DisplayAnalog Speedometer with Digital Display

*All the specifications are subject to change upon company rules, policy, offer & promotion. BikeBD is not liable for the changes.

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার

হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার কম্পারিজন রিভিউ

তো বন্ধুরা, মোটামুটি এই ছিলো হিরো ইগনাইটর ভার্স হিরো গ্ল্যামার কম্পারিজন রিভিউ এর মোটামুটি আলোচনা। দুটো বাইকই মোটামুটি একই ক্যাটাগরির কমিউটার হলেও তাদের পারফমেন্স ও সার্ভিস রেন্জ অনেকটাই ভিন্ন। তাই ক্রেতাদের এটাই সুবিধা যে তাদের প্রয়োজন মেটানোর সাথে সাথে আরো ভিন্ন কিছু পছন্দের সুযোগ থাকলো। ধন্যবাদ।

About Saleh Md. Hassan

আমি কোন বাতিকগ্রস্ত পথের খেয়ালী ধরনের নই…. তবে মোটরসাইকেল পছন্দ করি ও প্রয়োজনে ব্যবহার করি মাত্র…. কিছুটা ঘরকুনো বাধ্যগত চালক…. তবে মাঝে মাঝে নিজের ভেতরের যোগী-ভবঘুরে স্বত্তাকে মুক্তি দেই আমার দুইচাকার ঘোড়ার উপর চেপে বসে বিস্তৃত অদেখার পথে ছুটে যাবার জন্য…..অনেকটা বাঁধনহীন চির ভবঘুরের মতো…..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*