হাইওয়েতে রাইডিং করার সময় সেফটি গিয়ারের গুরুত্ব

হাইওয়েতে রাইডিং করা যেমন মজার তেমনি খুব রিস্কি । মোটরসাইকেল রাইড করার সময় সর্বপ্রথম কাজ হল সেফটি ঠিক রাখা । রাইডার এবং প্যাসেঞ্জারের সেফটি দেওয়া বা রাখা সবথেকে বেশি গুরত্বপূর্ন । তাই মোটরসাইকেলের সেফটি গিয়ার  পুরো বিশ্বের সবার কাছে খুব গুরুত্বপূর্ন । সেই সর্তকতার উপর নির্ভর করে ধীরে ধীরে আমাদের দেশেও সর্তকতা বেড়ে চলেছে বিশেষ করে ট্রাভেলারদের জন্য যারা অনেকক্ষন ধরে রাইড করে । সেই বিষয়কে লক্ষ্য রেখে আমরা আজকে আপনাদের কাছে হাইওয়েতে রাইডিং করার সময় সেফটি গিয়ারের গুরুত্ব নিয়ে আলোচনা করব ।

হাইওয়েতে রাইডিং

মোটরসাইকেল সেফটি গিয়ার এন্ড এ্যাপারেল

সর্বপ্রথম আমাদের জানা উচিত মোটরসাইকেলের সেফটি গিয়ার কি এবং সেফটি গিয়ারে কি কি থাকে । মোটরসাইকেল সেফটি গিয়ার হল সেই জিনিস যেটা মানুষের কোমল বা গুরুত্বপূর্ন জায়গাগুলোকে আঘাত থেকে রক্ষা করে । এছাড়াও এটা রাইডারসকে এয়ার প্রেসার এবং ধূলাবালি থেকে রক্ষা করে । এছাড়াও গরম এবং শীতের সময়ের রুক্ষ আবহাওয়া থেকে বাচতে সাহায্য করে । সেফটি গিয়ারস রাইডার এর ক্লান্তি এবং খারাপ লাগাও দূর করে ।

দ্বিতীয়ত এবং সব থেকে বেশি গুরুত্বপূর্ন হল মোটরসাইকেল সেফটি গিয়ার অথবা এ্যাপারেল মানব দেহের সব থেকে সেন্সেটিভ পার্টসগুলোকে রক্ষা করে । এটা মাথা, মুখ, ঘাড়, পিঠ, বুক, কনুই, পায়ের হাটু এবং পায়ের পাতাকে দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা করে । এটা সত্যি যে মোটরসাইকেল সেফটি গিয়ারস শরীরের সব অংশকে খুব পুরোপুরি রক্ষা করতে পারে না দূর্ঘটনা থেকে কিন্তু এগুলো দূর্ঘটনার সময় আঘাতগুলোর পরিমান কম করে ।

এপেরিয়ালস যেগুলোকে সেফটি গিয়ার হিসেবে বলা হয় সেগুলো হল উইন্ড ব্রেকার, গ্লাভস, বুটস, হেলমেট ইত্যাদি । এগুলো একেবারে বেসিক টাইপ সেফটি গিয়ারস যেগুলো বাইক চালানোর সময় অবশ্যই পড়তে হয় । রাইডারস এর রাইডিং স্টাইল এবং অভ্যাস এর উপর নির্ভর করে সেফটি গিয়ার বাড়ানো উচিত । যেমন ধরুন ফুল আর্মড রাইডিং জ্যাকেট এবং ট্রাউজার অথবা সুট যেটাতে হাই এঙ্কেল সার্পোটিভ বুটস স্ট্যান্ডার্ড এর সাথে ফুল ফেস হেলমেট এবং প্রটেকটিভ গ্লোভস ।

motorcycle safety gear bangladesh 768x402

রাইডিং উইথ মোটরসাইকেল সেফটি গিয়ার অন হাইওয়ে

হাইওয়েতে ফুল সেফটি গিয়ার পড়ে চালাতে কেমন লাগে আপনার ? এতগুলো গিয়ারস কি আপনার সমস্যার কারন হয়ে উঠেছে নাকি সুবিধার কারন ? আমার মতে আজকাল এতগুলো গিয়ার পড়ে হাইওয়েতে চলতে আসলে কেমন জানি লাগে । কিন্তু বিশ্বাস করুন যদিও দেখতে যেমনই লাগুক কিন্তু রাস্তায় হেটে যে যাচ্ছে সে জানে না এগুলোর গুরুত্ব কত একজন রাইডারের কাছে ।

ফুল সেট প্রটেকটিভ গিয়ার পড়ে বাইক চালানো রাইডারদের জন্য খুব কর্ম্ফোটেবল । সবথেকে বেশি এটা যে রাইডাররা সেসময় বাইক চালিয়ে খুব স্বাছন্দ্যবোধ করে । তাই যেকোন দূর্ঘটনা থেকে এগুলো বেশ সাহায্য করে রাইডারদের ।

প্রটেকটিভ গিয়ার এবং এপেরালস পড়ে চালালে রাইডাররা কিছুটা উইন্ড ব্লাস্ট , প্রেশার, ধুলাবালি এবং ওয়েদার কন্ডিশন থেকে বাচতে পারে । যার কারনে রাইডাররা খুব কম টায়ার্ড হয় । এছাড়াও সেফটি গিয়ারস এর জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা বাইক চালানো যায়

motorcycle riding gear basic safety apparel 768x359

এছাড়াও প্রটেকটিভ গিয়ার দূর্ঘটনা ও ক্রাশ থেকে পাওয়া আঘাতের পরিমান কম করে দেয় । কিন্তু যদি ভাগ্যে থাকে তাহলে কোনভাবে দূর্ঘটনা থেকে বাচা সম্ভব না তবুও এটা আঘাতের পরিমান কম করে ।

আর একটি বিষয় হল যে মোটো জিপিতে যত গিয়ার পড়ে তত সেফটি গিয়ার পড়তে বলছি না আমরা । রাইডার তার প্রয়োজন মত এবং রাইডিং প্যার্টান ও আবহাওয়ার উপর নির্ভর করে সেফটি গিয়ার ব্যবহার করবে । তাই যে কেউ সেপারেটেড, পার্শিয়াল বা কমপ্লিট গিয়ার চয়েজ করতে পারে তার ইচ্ছা মত ।

motorcycle safety gear motorcycle gear 768x433

অতএব হাইওয়েতে রাইডিং সেফটি গিয়ারের যে কি গুরুত্ব এই আলোচনার মাধ্যমে হয়ত আপনারা বুঝেছেন যে মোটরসাইকেল রাইডিং এর সময় সেফটি গিয়ার কত জরুরী । অতএব পাঠকেরা সেফটি গিয়ারস পরিধান করুন এবং সর্তক থাকুন এবং নিরাপদ থাকুন । আর অবশ্যই মনে রাখবেন সবার আগে নিরাপত্তা । ধন্যবাদ সবাইকে ।

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*