মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায়

মোটরসাইকেল রাইডিং এবং ট্যুরিং বিশ্বজুড়ে একটি জনপ্রিয় অ্যাডভেঞ্চার এক্টিভিটি। প্রায়শ:ই বিশ্বব্যাপী মোটরসাইক্লিস্টরা মোটরসাইকেল নিয়ে লং-রাইডে যান এবং অনেকে মোটরসাইকেল নিয়ে ওয়ার্ল্ড ট্যুরও করেন। সুতরাং মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায় সম্পর্কে মোটরসাইক্লিস্টদের পরিস্কার ধারনা রাখা উচিত। আর মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায় নিয়েই আমাদের আজকের আলোচনা।

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায়

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায়

মোটরসাইকেল চালানো অবশ্যই বেশ আনন্দের অভিজ্ঞতা এবং এটি একটি এ্যাডভেঞ্চারও বটে। সাধারণত লোকজন তাদের প্রতিদিনের যাতায়াতের প্রয়োজনেই মোটরসাইকেল চালায়। কিন্তু মোটরসাইকেল নিয়ে লং-রাইড ও লং-ট্যুর সাধারণ যাতায়াতের চেয়ে অনেকটাই আলাদা বিষয়। এক্ষেত্রে একজন মোটরসাইকেল চালককে দীর্ঘ সময় ধরে স্যাডলে বসে থাকতে হয় এবং মোটরসাইকেল চালাতে হয়।

আর সেইসাথে একজন রাইডারকে একটি মোটরসাইকেল ট্যুর সম্পন্ন করতে একইভাবে কয়েকদিন ধরেই মোটরসাইকেল চালাতে হতে পারে। সুতরাং একজন মোটরসাইক্লিস্টকে মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায় সম্পর্কে পরিস্কার ধারনা রাখতে হয়। আর সেইসব বিষয়ই আমরা নিম্নে আলোচনায় তুলে ধরছি।

সঠিক ধরনের মোটরসাইকেল বেছে নিন

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায় হিসেবে সঠিক ধরনের মোটরসাইকেল বেছে নেয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। রাস্তার ধরণ, রাস্তার অবস্থা, দূরত্ব, ট্যুরের সময়সীমা, এবং অবশ্যই একজন রাইডারের শারিরীক সক্ষমতা বিচার করেই সঠিক ধরণ ও সঠিক আকারের মোটরসাইকেল বেছে নেয়া উচিৎ। এটি ট্যুরে সাচ্ছন্দ ধরে রাখার অন্যতম কার্যকরী একটি উপায়।

সঠিক ধরনের রাইডিং গিয়ার বেছে নিন

একটি আরামদায়ক মোটরসাইকেল ট্যুরের জন্য অবশ্যই সঠিক ধরণের ও বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন রাইডিং গিয়ারের বেছে নেওয়া উচিত। রাইডিং গিয়ার অবশ্যই হালকা-ওজনের হতে হবে, ভালভাবে তৈরী এবং অবশ্যই আরামদায়ক হতে হবে। আর মোটরসাইকেল ট্যুরের এলাকার আবহাওয়া পরিস্থিতি অনুযায়ীই রাইডিং গিয়ার নির্বাচন করতে হবে।

ট্যুরে প্রয়োজনীয় শারিরীক সাপোর্ট সাথে রাখা

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে রাইডার অবশ্যই তার বয়স, শারীরিক গঠন, এবং শারীরিক অবস্থা অনুযায়ী যথাযথ শারীরিক সাপোর্ট সাথে রাখবেন। যেকোন ধরনের শারীরিক সমস্যার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ওষুধও সাথে রাখবেন। সেফটি গিয়ারের পাশাপাশি প্রয়োজনে রিস্ট-ব্যান্ড, ওয়েস্ট-ব্যান্ড, নেক-ব্রেস, নি-ব্রেস ইত্যাদি ব্যবহার লং-রাইডের স্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখতে খুবই কাজ করে।

long-distance-motorcycle-riding-tips

অনাকাঙ্খিত বাজে শব্দের পরিমান কমানো

অনাকাঙ্খিত বাজে শব্দের পরিমান কমানো মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায় গুলির মধ্যে অন্যতম। লং-ট্যুরে হেলমেটের এয়ার-নয়েজ, একজষ্টের উচ্চশব্দ, টায়ার বা চেইনের বাজে শব্দ, ঢিলেঢালা বাধা লাগেজের শব্দ বেশ বিরক্তিকর ও ক্লান্তিকর। সুতরাং এসব বাজে শব্দ কমানোর যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করেই পথে নামা উচিৎ।

সঠিক ধরনের ও আকারের লাগেজ ব্যবহার করা

একটি আরামদায়ক এবং ঝামেলামুক্ত লং-মোটরসাইকেল-ট্যুর নিশ্চিত করতে সঠিক মাপের লাগেজ বেছে নেওয়া উচিত। সেইসাথে লাগেজের আকার এবং এর ওয়েট-ব্যালান্সও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটি মোটরসাইকেলের সার্বিক ব্যালান্স ও কন্ট্রোলিং কে দারুনভাবে প্রভাবিত করে। ফলে এটি মোটরসাইকেল রাইডারের রাইডিং কম্ফোর্টকেও প্রভাবিত করে।

যতটা সম্ভব কম ওজন বহন করা

মোটরসাইকেল ট্যুরে একজন রাইডারের সাচ্ছন্দে থাকার অন্যতম পূর্বশর্ত হলো যতটা সম্ভব ওজনে হালকা থাকা। কেননা হালকা ওজনের একটি মোটরসাইকেল হান্ডেলিং ও কন্ট্রোলিং সহজতর হয়। আর এর ফলে রাইডারের শক্তি কম ক্ষয় হয় এবং রাইডার সাচ্ছন্দবোধ করেন। একারণেই লং-মোটরসাইকেল-ট্যুরগুলিতে মোটরসাইকেল ও লাগেজ যতটা সম্ভব হালকা হতে হয়।

মোটরসাইকেল যথাযথ রক্ষণাবেক্ষন করা

মোটরসাইকেলের লং-ট্যুরে স্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখার আরেকটি চাবিকাঠি হলো মোটরসাইকেলটির যথাযথ রক্ষণাবেক্ষন নিশ্চিত করা। কেননা একটি ভালভাবে মেইনটেইন করা মোটরসাইকেল চালানোর মজা ও সাচ্ছন্দই আলাদা। এটি রাইডিংয়ের মজা যেমন বাড়িয়ে দেয়, তেমনি লম্বা সময় ধরে চালিয়েও রাইডার ক্লান্তি অনুভব করেননা।

how-to-prepare-for-along-motorcycle-ride

যাত্রাপথে নিয়মিত বিরতি নেয়া

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার জন্য অবশ্যই একজন রাইডারকে নিয়মিত বিরতি নিতে হবে। স্বাভাবিকভাবেই একজন রাইডার রিফিউয়েলিং, খাবার বা পানীয় গ্রহণ, প্রাতকৃত সম্পাদনের জন্য বিরতি নেন। তবে এর সাথে সাথে অবশ্যই আলাদাভাবে নিয়মিত বিরতি নেওয়া উচিত। এটি আক্ষরিকভাবেই রাইডারের ক্লান্তি, অবসাদ, ঘুমঘুম ভাব দূর করে এবং রাইডারকে দীর্ঘপথ সাচ্ছন্দে পাড়ি দিতে সাহায্য করে।

বিরতিতে যথেষ্ট পরিমানে পনি পান করা

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরগুলিতে একজন রাইডারকে প্রতিটি বিরতিতে অবশ্যই পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করতে হবে। হয়তো এর ফলে ঘন ঘন প্রস্রাবের জন্য থামতে হবে। কিন্তু পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি গ্রহণ ডিহাইড্রেশন, ক্লান্তি, এবং ঘুম ঘুম ভাব এড়াতে সহায়তা করবে। ফলে একজন রাইডার দীর্ঘ সময় ধরে মোটরসাইকেল রাইডে সতেজ ও স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করবেন।

দিনশেষে ভালো একটি থাকার জায়গা খুজে নেয়া

এটিও একটি মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায়। দিনের শেষে আরামদায়ক একটি থাকার ব্যবস্থা করা একজন লং-ট্যুরারের জন্য খুব প্রয়োজনীয়। কেননা দিনের রাইড শেষে ব্যাক্তির একটি চমৎকার গোসল, প্রাকৃতিক কাজ সম্পাদন, ভাল খাবার ও পানীয় গ্রহণ, এবং তারপরে একটি ভলো ঘুম খুবই প্রয়োজন। আর এসবই পরবর্তী দিনের রাইডের জন্য একজন রাইডারকে উজ্জিবিত রাখে।

যেকোন অবস্থায় শান্ত ও নিয়ন্ত্রনে থাকা

মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে একজন রাইডারকে যেকোন পরিস্থিতিতে শান্ত থাকতে হয়। যেকোন অবস্থায় শান্ত থাকার ফলে যেকোন পরিস্থিতি ভালভাবে মোকাবেলা করা সহজ হয়। আর এটি ব্যাক্তির মেজাজ নিয়ন্ত্রণ করে এবং স্ট্যামিনা বাঁচায়। ফলে রাইডারের সাচ্ছন্দও নিশ্চিত হয়। সুতরাং পরিস্থিতি যাই ঘটুক না কেন লং-রাইডে মোটরসাইক্লিস্টকে মেজাজ শান্ত রাখতে হবে।

   মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায়

তো বন্ধুরা, এগুলিই মূলত: মোটরসাইকেল লং-ট্যুরে সাচ্ছন্দে থাকার উপায়। আর এছাড়াও একজন রাইডার তাঁর নিজস্ব অভিজ্ঞতায় নিজস্ব কম্ফোর্ট-জোন খুঁজে নিতে পারেন আর লং-ট্যুরে নিজের স্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখতে পারেন। ফলে তার রাইড নিশ্চিতভাবেই আরো নিরাপদ, আরামদায়ক, এবং উপভোগ্য হয়ে উঠতে পারে। এটিই মুল বিষয়। ধন্যবাদ সবাইকে।

About Saleh Md. Hassan

it's Saleh, a homebound stranger; sometimes unleashes the inner ascetic to trail like an outlaw.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*