‘মোটরযান আইন’ অনুযায়ী কোন অপরাধে জরিমানা কত

ঢাকা মহানগরীর ট্রাফিক–ব্যবস্থার উন্নয়ন, ট্রাফিক আইনের কঠোর প্রয়োগ, জনসচেতনতা এবং ট্রাফিক শৃঙ্খলা আনার লক্ষ্যে শুরু হয়েছে ট্রাফিক শৃঙ্খলা কার্যক্রম ট্রাফিক পক্ষ। ১৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ট্রাফিক পক্ষ চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। সারা দেশে মোটরগাড়ির সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে সড়ক দুর্ঘটনাও। মোটরগাড়ি চালানোর আইনকানুন না জানা কিংবা আইনকানুনকে তোয়াক্কা না করার প্রবণতাসহ কয়েকটি কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে। বাংলাদেশে মোটরগাড়ির জন্য প্রযোজ্য বিশেষ আইন আছে। আইন অমান্য করলে জরিমানা কিংবা মামলা হতে পারে। রাস্তায় গাড়ি নিয়ে নামার আগে জানতে হবে সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধিগুলো। ডিএমপি এ বিষয়ে তাদের নিজস্ব অনলাইন নিউজ পোর্টাল ডিএমপি নিউজে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেছে। ১৯৮৩ সালের ‘মোটরযান…

Review Overview

User Rating: 3.14 ( 5 votes)

ঢাকা মহানগরীর ট্রাফিক–ব্যবস্থার উন্নয়ন, ট্রাফিক আইনের কঠোর প্রয়োগ, জনসচেতনতা এবং ট্রাফিক শৃঙ্খলা আনার লক্ষ্যে শুরু হয়েছে ট্রাফিক শৃঙ্খলা কার্যক্রম ট্রাফিক পক্ষ। ১৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ট্রাফিক পক্ষ চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত।

মোটরযান অপরাধ

সারা দেশে মোটরগাড়ির সংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে সড়ক দুর্ঘটনাও। মোটরগাড়ি চালানোর আইনকানুন না জানা কিংবা আইনকানুনকে তোয়াক্কা না করার প্রবণতাসহ কয়েকটি কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে। বাংলাদেশে মোটরগাড়ির জন্য প্রযোজ্য বিশেষ আইন আছে। আইন অমান্য করলে জরিমানা কিংবা মামলা হতে পারে। রাস্তায় গাড়ি নিয়ে নামার আগে জানতে হবে সংশ্লিষ্ট আইন ও বিধিগুলো। ডিএমপি এ বিষয়ে তাদের নিজস্ব অনলাইন নিউজ পোর্টাল ডিএমপি নিউজে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরেছে।

১৯৮৩ সালের ‘মোটরযান আইন’ অনুযায়ী কোন অপরাধে কী শাস্তির বিধান আছে, তা সংক্ষেপে তুলে ধরা হলো—

১. নিষিদ্ধ হর্ন/হাইড্রোলিক হর্ন ব্যবহার করলে জরিমানা গুনতে হবে ১০০ টাকা। এটি ১৩৯ ধারার শাস্তি

২. আদেশ অমান্য, বাধা সৃষ্টি ও তথ্য প্রদানে অস্বীকৃতি জানালে ১৪০(১) ধারায় জরিমানা হবে ৪০০ টাকা

৩. ওয়ানওয়ে সড়কে বিপরীত দিকে গাড়ি চালালে ১৪০(২) ধারায় গুনতে হবে ২০০ টাকা জরিমানা

৪. অতিরিক্ত গতি বা নির্ধারিত গতির চেয়ে দ্রুতগতিতে গাড়ি চালিয়ে গেলে জরিমানা ৩০০ টাকা। এ অপরাধ আবার করলে জরিমানা ৫০০ টাকা

৫. দুর্ঘটনাসংক্রান্ত যেসব অপরাধ থানায় ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, সেসব অপরাধে জরিমানা হবে ৫০০ টাকা। একই অপরাধ আবার করলে জরিমানা দিতে হবে ১ হাজার টাকা।

৬. নিরাপত্তাবিহীন অবস্থায় গাড়ি চালানো ১৪৯ ধারায় ২৫০ থেকে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা হবে

৭. কালো বা অতিরিক্ত ধোঁয়া বের হওয়া মোটরযান সড়কে ব্যবহার করলে ১৫০ ধারায় জরিমানা ২০০ টাকা

৮. মোটরযান আইনের সঙ্গে সংগতিবিহীন অবস্থায় গাড়ি বিক্রয় বা ব্যবহার, গাড়ির পরিবর্তন করলে মোটরযান আইনে ১৫১ ধারায় জরিমানা দিতে হবে দুই হাজার টাকা

৯. রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট বা ফিটনেস সার্টিফিকেট অথবা রুট পারমিট ব্যতীত মোটরযান ব্যবহার করা যাবে না। ব্যবহার করলে জরিমানা ১ হাজার ৫০০ টাকা। আবার একই অপরাধ করলে জরিমানা ২ হাজার ৫০০ টাকা

১০. অনুমোদনবিহীন এজেন্ট বা ক্যানভাসার নিয়োগ করলে ১৫৩ ধারায় জরিমানা ৫০০ টাকা; অপরাধের পুনরাবৃত্তি হলে জরিমানা গুনতে হবে ১ হাজার টাকা

১১. অতিরিক্ত মাল বা অনুমোদিত ওজনের বেশি নিয়ে গাড়ি চালানো হলে ১৫৪ ধারায় জরিমানা ১ হাজার টাকা। আবার একই ধরনের অপরাধ করলে জরিমানা ২ হাজার টাকা

১২. বিমা/ইন্স্যুরেন্স ব্যতীত যানবাহন চালানো ১৫৫ ধারায় জরিমানা দিতে হবে ৭৫০ টাকা

১৩. অনুমতি ব্যতীত গাড়ি চালালে ১৫৬ ধারায় জরিমানা ৭৫০ টাকা

১৪. প্রকাশ্য সড়কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করলে ১৫৭ ধারায় জরিমানা ৫০০ টাকা

১৫. যেসব অপরাধের জন্য মোটরযান আইনে সুনির্দিষ্ট কোনো শাস্তির ব্যবস্থা নেই, সে ক্ষেত্রে ১৩৭ ধারায় জরিমানা ২০০ টাকা। অপরাধের পুনরাবৃত্তিতে জরিমানা ৪০০ টাকা

 

 

সূত্রঃ প্রথম আলো

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*