ভাষার মাসে বাজাজ বাংলাদেশের “আমি জানি পথের ভাষা” ক্যাম্পেইন!

ভাষা বলতে কেবল মুখে উচ্চারিত ধ্বনি বোঝায় না, কখনো কখনো ভাষা হয়ে দাঁড়ায় নিয়ম শৃঙ্খলা ও সঠিকভাবে পথ চলার নির্দেশিকা। একজন আরেকজনের সাথে কথা বলতে যেমন ভাষার প্রয়োজন, রাস্তায় চলার জন্য ঠিক তেমই ভাষা আছে। আর এই রাস্তার ভাষা সঠিক ভাবে মেনে চললে রাস্তায় চলাচল করা যেমন খুব সহজ, তেমনি নিরাপদ থাকাও সম্ভব।

bajaj campaign বাজাজ বাংলাদেশ আমি জানি পথের ভাষা

বাজাজ বাংলাদেশ গত বছর ২০২০ সালে ভাষার মাসে “পথের ভাষা” জানানোর চেষ্টা করেছিল সবাইকে। বাজাজ মোটরসাইকেল চালক শুভানুধ্বায়ীসহ সবাইকে এই উদ্যোগে সাধুবাদ জানায় এবং দেখা যায় বাজাজ বাংলাদেশ তাদের এই প্রচেষ্টায় আরও অনেককেই সচেতন করে তুলতে পেরেছে।

এরই ধারাবাহিকতায় এ বছর ২০২১ সালের ভাষার মাসে বাজাজ বাংলাদেশের প্রচেষ্টা “আমি জানি পথের ভাষা” ক্যাম্পেইন। এই ক্যাম্পেইন এ অংশ নিতে হলে একটি সংকের সাথে নিজের বাজাজ মোটরসাইলেসহ ছবি নিজের ফেসবুক বা ইন্সটাগ্রাম টাইমলাইনে পাব্লিকিলি শেয়ার করতে হবে।

ক্যাপশনে আপনি ট্র্যাফিক সংকেত দেখে কি বুঝতে পেরেছেন তা লিখতে হবে। সেই সাথে হ্যাশট্যাগ #আমিজানিপথেরভাষা #বাজাজবাংলাদেশ #মাতৃভাষাদিবস২০২১ ব্যবহার করতে হবে। যাতে করে আরও অনেকেই এই ছবি দেখে ও বুঝতে পারে এবং সচেতন হতে পারে।

এই ক্যাম্পেইনটি ২১শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে শুরু হয়ে ২৭শে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। ২৮শে ফেব্রুয়ারি বাজাজ বাংলাদেশের ফেইসবুক পেইজ থেকে বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হবে।

ট্র্যাফিক আইন ভঙ্গের মামলা এর জরিমানা এর বিস্তারিত

বাজাজ বাংলাদেশ সচেতনতায় উদ্বুদ্ধ করার পাশাপাশি এই কন্টেস্টে অংশ গ্রহণকারীদের পুরস্কার (১০ জনকে) দিয়ে আরও অনুপ্রানিত করার ব্যবস্থা করেছে। বিজয়ী হতে হলে অবশ্যই ভালো মানের ছবি, বাজাজ মোটরসাইকেলের উপস্থিতি, ছবির মৌলিকতা, রোড সাইনের যথার্থ ব্যাখ্যা, এই বিষয় গুলো উপস্থিত থাকতে হবে।

bajaj pulsar ns160 review বাজাজ পালসার এনএস১৬০

ক্যাম্পেইনে অংশ নিলে আপনার ছবিটি সত্ত্ব বাজাজ এর কাছে চলে যাবে। পরবর্তিতে যেকোন সময় ছবিটি বাজাজ ব্যবহার করতে পারবে। বাজাজ বাংলাদেশ যেকোন সময় প্রতিযোগিতার নিয়ম বা সময়কাল সংশোধন এবং পরিবর্তনের অধিকার রাখে।

যেকোন সমস্যায় বা কিছু বুঝতে না পারলে বাজাজ বাংলাদেশ এর ফেইবুক/ইন্সটাগ্রাম পেইযে যোগাযোগ করতে পারবেন।

বাজাজ মোটরসাইকেল চালকেরা সবসময়ই সচেতন আর তাই বাজাজ বাংলাদেশ তাদের চালকদের সচেতনতায় গর্বিত। আমাদের এই গর্বিত সচেতনতা আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই প্রতিটি বাইক চালক, পথচারী, গাড়ি/ ট্র্যাক/রিকশা/ভ্যান চালক সবার মাঝে।

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*