বাইকের বল রেসার পরিবর্তনের সময় যে ৫ টি ভুল কখনো করবেন না

স্পোর্টস বাইক হউক অথবা কমিউটার বাইক বাইকের বল রেসার প্রতিটা বাইকের জন্য খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ। বল রেসারের সমস্যা সব বাইকে কম বেশি হয়, তবে যারা স্পোর্টস বাইক ব্যবহার করেন তারা অনেকেই এই বল রেসার নিয়ে বেশ জটিলতায় পরেন।

বাইকের বল রেসার

স্পোর্টস বাইকে বল রেসার সেট করা যেমন কঠিণ একটা কাজ ঠিক তেমনি এই সব বাইকে যদি বল রেসারে হালকা সমস্যাও থাকে তাহলে সেটা বেশ বিরক্তির কারন হয়ে দাঁড়ায়। সবার প্রথমে আপনাকে বল রেসার সমস্যাটা কি সেটা একটু বুঝতে হবে।

বাইকের বল রেসার এ সমস্যা হলে কিভাবে বুঝবেন?

  • বাইকের বল রেসার যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে আপনি বাইকের রেসার যতোই টাইট করেন না কেনো সেটা টাইট হবে না। আবার যদিও টাইট হয় সেটা হাল্কা বাজে রাস্তা দিয়ে চালালে আবার লুস হয়ে যাবে। আপনি ব্রেক করলে বুঝতে পারবেন আপনার বাইকের সামনের দিকের অংশটি কোথায় যেনো লুস হয়ে আছে।
  • আমরা অনেকেই যেই অংশটাকে বাইকের ঘাড় বলে থাকি, ব্রেক করলে সেই জায়গা থেকে একটা শব্দ আসবে। অথবা বাইক যদি কোন ভাংগায় পরে তাহলেও এই শব্দ আসবে।

বাইকের বল রেসার এ সমস্যা

  • বাইক চালানোর সময় বাইকের হ্যান্ডেল অতিরিক্ত কাঁপবে, ডানবামে নড়াচড়া করবে। আপনি যদি স্পোর্টস বাইক ব্যবহার করে থাকেন সেক্ষেত্রে আপনার মনে হতে পারে আপনার বাইকের সামনের রিম টাল হয়ে গেছে।
  • বাইক যে কোন একদিকে বেশি টানবে, চালানোর সময় মনে হবে বাইকটি একা একা এক দিকে চলে যাচ্ছে।

বল রেসার নষ্ট হয়ে গেলে অধিকাংশ বাইকেই এই সমস্যাগুলো দেখা দেয়। এই সমস্যাগুলো থেকেই বুঝতে পারা যায় রেসারে সমস্যা হয়েছে।

বল রেসারে সমস্যা কেন হয়?

বাইক ব্যবহার করতে থাকলে একটা নিদিষ্ট সময় পর গিয়ে রেসার ক্ষয় হয়ে যায় এর ফলে এটি নষ্ট হয়ে যায়। এটা খুব সাধারণ একটা ব্যাপার, কিন্তু অনেকের ক্ষেত্রে দেখা যায় নতুন বল রেসার নষ্ট হয়ে যায়, এমনটা কেন হয়?

বল রেসারে সমস্যা কেন হয়

আপনি যদি আপনার বাইক রাফ ইউজ করেন, ভাংগা রাস্তায় বাইকের বিন্দুমাত্র যত্ন না নেন, স্পীড ব্রেকারে যদি বাইক ব্রেক না করেন ইত্যাদি বদ অভ্যাসগুলোর জন্য আপনার বাইকের বল রেসার নষ্ট হয়ে যায় দ্রুত। আবার অনেক সময় দেখা যায় রেসারে ঝামেলা তাকে, সেক্ষেত্রে সেগুলো দ্রুত নষ্ট হয়ে যায়।

বাইকের বল রেসার পরিবর্তনের সময় যে ৫ টি ভুল করবেন না

বাইকের বল রেসার পরিবর্তনের সময় আমরা অনেক ভুল করে থাকি, যার ফলে আমাদের আগামীর দিলে বেশ বড় ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। আবার দেখা যায় রেসার পরিবর্তনের পর বাইক চালিয়ে আর আগের মতো মজা পাওয়া যায় না। বল রেসার পরিবর্তনের সময় যে ৫ টি ভুল কখনোই করবেন না,

বল রেসার

১- বাইকের বল রেসার বাইকের জন্য খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ, আপনার বাইকের সঠিক ব্যালেন্স রাখতে এটা বেশ বড় ভূমিকা রাখে। তাই ছোট্ট এই পার্টসটা নিয়ে অবহেলা করবেন না, যেখান সেখান থেকে বাইকের বল রেসার পরিবর্তন করবেন না। যাকে দিয়ে কাজটা করাবেন তার সম্পর্কে আগে ভালোভাবে জেনে নিন। যারা স্পোর্টস বাইক ব্যবহার করেন তারা এই দিকটাতে বিশেষভাবে সাবধান থাকুন। মেকানিক যদি ভালো না হয় তাহলে রেসার পরিবর্তনের পর আপনার বাইকে অনেক সমস্যা বেড়ে যাবে।

আরও পড়ুন >> বাইক পানিতে চালালে কি ইঞ্জিনে পানি প্রবেশ করে?

২- বল রেসার পরিবর্তনের সময় নিজে পাশে দাঁড়িয়ে থাকুন, বাইক দিয়ে চলে যাবেন না। যেহেতু এটা চেঞ্জ করতে হাতুড়ীর ব্যবহার হয়ে থাকে, তাই একটু অসাবধানতা বড় ক্ষতির কারন হয়ে যেতে পারে।

৩- রেডিয়েটর যুক্ত বাইকগুলার ক্ষেত্রে মেকানিককে বিশেষভাবে সাবধান করে দিন, কোনভাবেই যেনো বাইকের রেডিয়েটরে আঘাত না লাগে। রেডিয়েটর মেরামত অনেক ব্যয়বহূল সেটা অবশ্যই মাথায় রাখুন।

r15-s

৪- এই কাজটা অনেক মানুষই করে থাকেন, আর সেটা হচ্ছে কিছু টাকা বাচানোর জন্য কম দামি, নকল , অথবা অন্য বাইকের রেসার নিজের বাইকে লাগিয়ে থাকেন। অথচ এই রেসার আপনার বাইকের জন্য না। আপনি জানেন কি নকল অথবা রেসারে সমস্যা থাকলে সেটা আপনার বাইকের চ্যাসিসে মারাত্নক ক্ষতি করতে পারে? এই ভুলটা আর কখনো করবেন না, সব সময় বল রেসার আসলটা লাগান টাকা একটু বেশি লাগলেও আপনার বাইক ভালো থাকবে।

৫- তাড়াহুড়ো করে রেসার সেট করাবেন না, এতে করে আপনার সেটিং সঠিকভাবে নাও হতে পারে। আর বাইকের হ্যান্ডেলে যদি কোন সমস্যা থাকে তাহলে আপনার বিপদ আসতেও খুব বেশি টাইম লাগবে না।

বাইকের বল রেসার পরিবর্তনের সময় খুব সতর্ক থাকুন, নিজে থেকে কাজ বুঝে নেয়ার চেষ্টা করুন। বাইক ভালো রাখতে চাইলে সব সময় আসল পার্টস ব্যবহার করুন। নিয়ন্ত্রিত গতিতে বাইক রাইড করুন।

ধন্যবাদ

 

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

BikeBD
Logo