বাইকের এয়ার ফিল্টার কখন পরিবর্তন করবেন? কিভাবে বুঝবেন ?

মানুষ যেমন বিশুদ্ধ অক্সিজেন ছাড়া সুস্থ থাকতে পারেন না, ঠিক তেমনি বাইকের এয়ার ফিল্টার  ছাড়া বিশুদ্ধ এয়ার বাইকের ইঞ্জিনে প্রবেশ করতে পারে না। আমরা যারা বাইকের ইঞ্জিন সম্পর্কে কিছুটা হলেও ধারণা রাখি তারা সবাই জানি যে বাইকের ইঞ্জিনে এয়ার এবং ফুয়েল মিশ্রিত হয়ে বার্ন হয়।

বাইকের এয়ার ফিল্টার

বাইরের থেকে বাতাস যখন ইঞ্জিনে প্রবেশ করে তখন এই এয়ার ফিল্টার সেই বাতাসকে বিশুদ্ধ করে ইঞ্জিনে প্রবেশ করায়। বাতাসের সাথে প্রচুর পরিমাণ ধুলাবালি থাকে, যার অধিকাংশ আমরা খালি চোখে খুব কম দেখতে পায়। এয়ার ফিল্টার এই সব ধুলাবালির হাত থেকে আমাদের বাইকটির ইঞ্জিনকে রক্ষা করে।

কিন্তু একটা সময় ধুলাবালি যেতে যেতে বাইকের এয়ার ফিল্টার নষ্ট হয়ে যায়। আর আপনি যদি এই সম্পর্কে কোন ধারণা না রাখেন তাহলে আপনার বাইকের ইঞ্জিনে বেশ ভালো ক্ষতি হতে পারে। আজ আমরা বাইকের এয়ার ফিল্টার কখন পরিবর্তন করবেন সেটা নিয়ে আপনাদের সাথে আলোচনা করবো।

বাইকের এয়ার ফিল্টার কখন পরিবর্তন করবেন?

উত্তরটা খুব সহজ, যখন নষ্ট হয়ে যাবে তখন আপনাকে এটি পরিবর্তন করতে হবে। আপনি যদি একটি নতুন এয়ার ফিল্টার দেখে থাকেন তাহলে আপনার বাইকের এয়ার ফিল্টার নষ্ট হলে সেটা দেখলেই আপনি বুঝতে পারবেন। তবে এয়ার ফিল্টার নষ্ট হলে বাইকে বেশ কিছু সমস্যা দেখা দেয়, যা হলে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার বাইকের এয়ার ফিল্টার নষ্ট হয়ে গেছে।

বাইকের এয়ার ফিল্টার কখন পরিবর্তন করবেন

১- বাইকের এয়ার ফিল্টার নষ্ট হয়ে গেলে বাইকের ইঞ্জিন আগের মতো স্মুথ থাকবে না।

২- বাইকের ইঞ্জিন এমনি সময়ের থেকে বেশি হিট হয়ে যাবে।

৩- বাইকের সাউন্ড আগের চেয়ে বেড়ে যাবে।

৪- এয়ার এবং ফুয়েলের সঠিক মিশ্রণ হবে না, যার ফলে আপনার বাইকের মাইলেজেও তফাত দেখা দিবে।

৫- আপনি যখন বাইকটা চালাবেন তখন বাইকের ইঞ্জিন আপনার কাছে বেশ জ্যাম মনে হবে।

এয়ার ফিল্টার নষ্ট হয়ে গেলে প্রধানত এই সমস্যাগুলো বাইকে দেখা দেয়। এছাড়াও,

৬- বাতাসের সাথে ইঞ্জিনে ধুলাবালি ঢুকে যাবে।

৭- ধুলাবালি প্রবেশের কারনে বাইকের ইঞ্জিনের পিস্টনের মাথা এবং পিস্টনের রিংগুলিতে স্ক্র্যাচ তৈরি হবে। এর ফলে ইঞ্জিন থেকে উৎপাদিত শক্তির অপচয় হবে।

বাইকের এয়ার ফিল্টার ভালো রাখার উপায়ঃ

বাইক চালালে একটা নিদিষ্ট সময় পর বাইকের এয়ার ফিল্টার নষ্ট হয়ে যাবেই। কিন্তু আপনি যদি একটু যত্ন নেন তাহলে এটি কিছুটা পরে নষ্ট হবে। আমাদের বাইকগুলোর সাথে যে এয়ার ফিল্টার থাকে এগুলো ১০০০ কি.মি পর পর চেক করে দেখুন, যদি ময়লা জমে তাহলে বাতাস দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন। আপনি যদি বাইকের এয়ার ফিল্টার পরিষ্কার রাখেন তাহলে এটি বেশি সময় ব্যবহার করা যায়।

তবে আপনি যদি ভালোমানের কোন এয়ার ফিল্টার ব্যবহার করেন তাহলে সেটা অনেক বেশি দিন ব্যবহার করা যায়, যা হয়তো আপনাদের অনেকের ধারনার বাইরে।

bmc-air-filter-race

আরও পড়ুন >> BMC এয়ার ফিল্টার এর অফিশিয়াল ডিস্ট্রিবিউটর গিয়ারএক্স বাংলাদেশ

বাইকের প্রতিটা জিনিসের যত্ন নিন, দেখবেন আপনার বাইকটি অনেকদিন ভালো থাকবে। সব সময় নিয়ন্ত্রিত গতিতে বাইক রাইড করুন। নিজে সুস্থ থাকুন পরিবারকে সুস্থ রাখুন।

ধন্যবাদ

 

We will be happy to hear your thoughts

Leave a reply

BikeBD
Logo