২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক

২০১৮ সাল হচ্ছে মোটরসাইকেল মার্কেটের জন্য সব থেকে এক অসাধারন বছর, প্রায় ৪,৫০,০০০ ইউনিট বিক্রি হয়েছে পুরো বাংলাদেশে । আজকে আমি আপনাদের সামনে ২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক এর বিষয়ে তুলে ধরব । গত ৩ বছর ধরে, আমরা দেখতে পাচ্ছি যে প্রতি বছর মোটরসাইকেল মার্কেট শতকরা ৩০% এভারেজে বৃদ্ধি পাচ্ছে । আমাদের ধারনা মতে ২০১৯ সালে প্রায় ১৮টির ও বেশি বাইক লঞ্চ হওয়ার সম্ভাবনা আছে আর আমরা যদি ভাগ্যবান হয় তাহলে আশা করি আরো বেশি পাওয়ার এবং টর্ক যুক্ত বাইক পেতে পারি । এই টপ ৫ তালিকায় আজকে আমি আমার প্রিয় বাইক নিয়ে কথা বলতে চায় যেটি ২০১৮…

Review Overview

User Rating: 4.33 ( 2 votes)

২০১৮ সাল হচ্ছে মোটরসাইকেল মার্কেটের জন্য সব থেকে এক অসাধারন বছর, প্রায় ৪,৫০,০০০ ইউনিট বিক্রি হয়েছে পুরো বাংলাদেশে । আজকে আমি আপনাদের সামনে ২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক এর বিষয়ে তুলে ধরব ।

top 5 bikes of 2018 বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক

গত ৩ বছর ধরে, আমরা দেখতে পাচ্ছি যে প্রতি বছর মোটরসাইকেল মার্কেট শতকরা ৩০% এভারেজে বৃদ্ধি পাচ্ছে । আমাদের ধারনা মতে ২০১৯ সালে প্রায় ১৮টির ও বেশি বাইক লঞ্চ হওয়ার সম্ভাবনা আছে আর আমরা যদি ভাগ্যবান হয় তাহলে আশা করি আরো বেশি পাওয়ার এবং টর্ক যুক্ত বাইক পেতে পারি ।

এই টপ ৫ তালিকায় আজকে আমি আমার প্রিয় বাইক নিয়ে কথা বলতে চায় যেটি ২০১৮ সালে লঞ্চ হয়েছিল । এই তালিকাটি পুরোপুরি ১০০০ কিমি টেস্ট রাইড করার পর আমার নিজস্ব ধারনা থেকে করা ।

২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক

২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক – রোডমাস্টার র‍্যাপিডো

যদিও বাইকটি টেস্ট রাইড করার সময় আমি অসুস্থ ছিলাম যার কারনে মাঝে মাঝে আমাকে বিরতি নিতে হয়েছে । রোডমাস্টার হল বাংলাদেশী মোটরসাইকেল কোম্পানি এবং আপনি দেখতে পাবেন যে মোটরসাইকেল এর ঘাড়ের দিকে লেখা আছে মেড ইন বাংলাদেশ । যদিও এটি বাংলাদেশের সব থেকে দ্রুতগামী মোটরসাইকেল না এই সেগমেন্টে কিন্তু বেশ কিছু কারনে বাইকটি বাইকারদের দৃষ্টি আর্কষন করেছে ।

roadmaster rapido 150cc price in bangladesh

রোডমাস্টার র‍্যাপিডো হল বেশ এগ্রেসিভ এবং বাইকটিতে আপনি পুরানো যুগের মজাও পাবেন রাইড করে । বাইকটি সিভিলাইজড মোটরসাইকেল না কিন্তু বাইকটির সাউন্ড পথচারীদের দৃষ্টি আর্কষন করে । বাইকটিতে সিবিএস এর সাথে এগ্রেসিভ স্টাইলিং এর সাথে হার্ডকোর এক্সজস্ট আপনাকে বেশ আনন্দ দেবে সাথে বাইকটির দাম হল ১,৬৮,৯০০ টাকা

২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক – বাজাজ পালসার এনএস ১৬০

আমার কাছে মনে হয়, এই সেগমেন্টে সব থেকে বেস্ট লুকিং বাইক হল এই বাইকটি । তারা বাইকটির বিল্ট কোয়ালিটিও বেশ ভাল করেছে । হ্যা, বাইকটিতে একটি সমস্যা আছে আর তা হল বাইকটির পিছনের টায়ারটি হল চিকন কিন্তু রিয়ার মনো-শক সাস্পেনশন এবং পেরিমিটার ফ্রেম এর জন্য এই সমস্যাটি কিছু মনে হয় না ।

bajaj pulsar ns160 review বাজাজ পালসার এনএস১৬০

তারা আসলে বেশ সময় দিয়েছে বাইকটির বিল্ড কোয়ালিটি ভাল করার জন্য এবং বাংলাদেশের মানুষ পালসার সিরিজের প্রতি এমনিও দূর্বল এবং আমি মনে করি যখন টুইন ডিস্ক ভার্শন সাথে ১২০ সেকশন রিয়ার টায়ার লঞ্চ হবে তখন বাইকটি আরো সাড়া পাবে ।

২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক – হোন্ডা সিবি হর্নেট ১৬০আর

বাংলাদেশে হোন্ডা মোটরসাইকেলের ১৫০-১৬০সিসি সেগমেন্টের সর্বপ্রথম প্রিমিয়াম মোটরসাইকেল এবং এখনও মনে আছে যে যখন মি. ইশি হোন্ডা সিবি হর্নেটে লঞ্চিং এ হোন্ডা সিবি হর্নেটের দাম ঘোষনা করেন তখন কেমন বাইকাররা খুশি হয় । প্রথম দিকে মানুষেরা বাইকটিকে বেশ পচ্ছন্দ করে । বাইকটিতে ড্রাইভ চেইনে কিছু সমস্যা ছিল কিন্তু ব্রেকিং এবং কর্নারিং এর দিক দিয়ে এই সেগমেন্টে বাইকটি সব থেকে বেস্ট ।

honda cb hornet bangladeshi price

বেশির ভাগ মানুষ আমার মত মনে করবে যে বাইকটিতে রেডি পিক আপ নেই কিন্তু আপনি যখন বাংলাদেশের হিল ট্র্যাকে বাইকটি চালাবেন তখন বুঝতে পারবেন যে বাইকটির ইঞ্জিনে টর্ক নামে কিছু আছে ।

<<Click Here For Honda CB Hornet Test Ride Video Review>>

বাইকটির বিষয় সব থেকে বেশি যে জিনিসটি আমাকে আকর্ষিত করেছে তা হল অন্যান্য বাইক যেমন হোন্ডা সিবি ট্রিগার অথবা ইউনিকর্ন এর থেকে এই বাইকটি দেখতে বেশ এগ্রেসিভ দেখতে অনেকটি সিবি হর্নেট ২৫০, সিবিএফ ৬০০ হর্নেট এবং সিবিএফ ৯০০ হর্নেট থেকে নেওয়া । আমার মনে এই বাইকটি বাংলাদেশের সব থেকে আইকোনিক বাইক ।

২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক – টিভিএস এপ্যাচি আরটিআর ১৬০ ৪ভি

আমি এই বাইকটি বিষয় বেশি কিছু বলবো না এখন কারন আমি এখনও বাইকটির টেস্ট রাইড করছি কিন্তু ফেব্রুয়ারীর মধ্যে আশা করি আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে টেস্ট রাইড রিভিউ প্রকাশ করব কিন্তু একটি বিষয় হল যে পুরাতন ভার্শন থেকে এই ভার্শনটি অনেক উন্নত মানের ।

২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক – ইয়ামাহা আর১৫ ভি৩

অনেক বাইকার আমার সাথে একমত হবেন না, হ্যা বাংলাদেশে অনেক স্পোর্টস বাইক আছে যেগুলো রাইডিং এ বেশ ভাল কিন্তু আমার মতে এই বাইকটি বাংলাদেশের সব থেকে বেস্ট স্পোর্টস বাইক । বর্তমানে এই বাইকটি বাংলাদেশের সব থেকে পাওয়ারফুল বাইক, ১৯.০৪ বিএইচপি পাওয়ার সাথে ১৫৫ সিসি ওয়াটার কুলিং ইঞ্জিন ।

yamaha r15 v3 price 550x390

যেভাবে বাইকটির ব্রেক কাজ করে তার মাধ্যমে কর্নারিং করা খুব সহজ । বাইকটি একটু মোটা এবং কম উচ্চতা আমার মত মানুষের জন্য হ্যান্ডেলিং এবং ভাঙ্গা রাস্তায় রাইড এর জন্য একটু কঠিন কিন্তু দিনশেষে আপনি যখন বাইকটির থ্রোটল ঘুরাবনে তখন আপনি এগুলো সব কিছু ভুলে যাবেন ।

Yamaha R15 v3 Test Ride Review

এই ছিল আমার ২০১৮ সালে বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক এর পছন্দের তালিকা । আপনি আপনারটা চয়েস করে নিতে পারেন । আমরা রোড কন্ডিশন, স্টাইল, ডিজাইন এবং ইঞ্জিন এর উপর নির্ভর করে তালিকা তৈরী করেছি । ধন্যবাদ সবাইকে ।

 

>>>>বাংলাদেশের টপ ৫ টি বাইক ইংরেজিতে পড়তে এখানে ক্লিক করুন<<<<

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*