টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ফিচার রিভিউ

টিভিএস মোটর গত এপ্রিল ৮, ২০১৯ এ টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ মোটরসাইকেলটি বাংলাদেশের বাজারে ছেড়েছে। এটি মুলত: টিভিএস এর একটি কমিউটার ক্যাটাগরী মোটরসাইকেল। তবে ইকোনোমিক মার্কেট টার্গেট করে এই বাইকটি কিছুটা ভিন্নভাবে ডিজাইন করা। তো নতুন এই বাইকটির পরিচিতি নিয়েই আমাদের আজকের টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ফিচার রিভিউ ।

tvs-max-125-feature-specification-price-review

লুক ও ডিজাইন

টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ দৃষ্টিনন্দন লুক ও এ্যাপিয়ারেন্সের একটি স্ট্রিট কমিউটিং বাইক। এটা সাধারনভাবে প্রাত্যহিক চলাফেরার উপযোগী করেই ডিজাইন করা। তবে টিভিএস এর একই ধারার অন্য বাইকগুলি হতে এতে কিছু ভিন্নতা রয়েছে।

তবে যা হোক, প্রথম দর্শনে এটি চমৎকার কালার ও শেডের চমৎকার দর্শন একটি বাইক। তবে ভালোভাবে লক্ষ্য করলে দেখা যায় এর অনেক কিছুই টিভিএস এর ফনিক্স ও ষ্ট্রাইকার মডেলগুলোর সাথে মিলে যায়।

ম্যাক্স ১২৫ বাইকটির ওভাল শেপের ফুয়েল-ট্যাঙ্কটি মুলত: টিভিএস এর আগের ভার্শনের ফনিক্স ১২৫ থেকে নেয়া। তবে এর কালার ও শেড একদমই আলাদা। আর ট্যাঙ্কটি ছাড়া বাইকটির বাকি অংশগুলো বলা যায় ষ্ট্রাইকার ১২৫ এর কপি।

তবে সবমিলিয়ে টিভিএস ম্যাক্স বাইকটি ওভাল ফুয়েল-ট্যাঙ্ক, স্পোর্টি হেডল্যাম্প, টেইল আর সিটসহ একটি অলাদা চেহাড়ার বাইক। আর এভাবেই এটি টিভিএস এর অন্যান্য কমিউটার থেকে ভিন্ন চেহাড়া পেয়েছে। আর সেইসাথে এর হুইল ও ডাইমেনশনেও রয়েছে বেশ কিছু পার্থক্য।

tvs-max-125-wheel-brake-suspension-system

ফ্রেম, হুইল, ব্রেক, ও সাসপেনশন সিষ্টেম

টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ সিঙ্গেল-ক্রেডল ষ্টিল ফ্রেমে নির্মিত। সামান্য কিছু পার্থক্য বাদ দিলে এটা একই ফ্রেম যা ষ্ট্রাইকার ১২৫ এ ব্যবহার করা হয়েছে। তবে ম্যাক্স ১২৫ এর চাকাগুলো একবারেই আলাদা মাপের। এগুলি সামনে ১৯” আর পেছনে ১৬” মাপের, যেটা স্ট্রিট কমিউটারে সাধারনত দেখা যায় না। তবে একারনেই এটি ভাঙ্গা ও খারাপ রাস্তায় সহজে চলতে উপযোগী।

আর এর চাকাগুলো ৬-স্পোকের এ্যালয় রিম সহ চিকন ষ্ট্রিট টায়ারযুক্ত। আর এর ব্রেকিং সিষ্টেমে রয়েছে সামনের চাকায় ২৪০মিমি হাইড্রলিক ডিস্কব্রেক। আর এর পেছনে রয়েছে ১৩০মিমি সাধারন ড্রাম-টাইপের ব্রেক।

বাইকটির সামনে রয়েছে সাধারন টেলিস্কোপিক ফর্ক সাসপেনশন। আর এর পেছনে রয়েছে সিরিজ-স্প্রিং লোডেড ডাবল-সাসপেনশন। তো টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ বাইকটির হুইল, ব্রেক, ও সাসপেনশন নিয়ে সবমিলিয়ে বলা যায় এটি একটি সমন্বিত ও ইকোনমিক প্যাকেজ।

tvs-max-125-engine specification

টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ইঞ্জিন ফিচার

টিভিএস এর ম্যাক্স ১২৫ এর ইঞ্জিনটি একটি সিঙ্গেল-সিলিন্ডার, এয়ার-কুলড, ফোর-ষ্ট্রোক ইঞ্জিন। এটি সুক্ষভাবে বলতে গেলে একটি ১২৪.৫৩সিসি ইঞ্জিন যাতে SOHC ২-ভালভ রয়েছে। আর এই ইঞ্জনটি টিভিএস এর কমিউটার সিরিজের অন্যন্য ১২৫সিসি বাইকেও ব্যবহার করা হয়েছে।

তো কার্বুরেটরযুক্ত এই ইঞ্জিনটি সর্বোচ্চ ৮.১০কিলোওয়াট পাওয়ার আর ১০.৮এনএম টর্ক উৎপাদন করতে পারে। আর ইকো-থ্রাষ্ট টেকনলোজি এতে তুলনামুলক ভালো ফুয়েল ইকোনমি নিশ্চিত করে। তো সার্বিকভাবে বলা যায় এই ইঞ্জিনটিতে পাওয়ার, পারফর্মেন্স ও ফুয়েল ইকোনমির সমন্বয় ঘটানো হয়েছে।

টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ফিচার রিভিউ

TVS Max 125 – Specification

SpecificationTVS Max 125
EngineSingle Cylinder, Four Stroke,

Air Cooled, SOHC 2-Valve, SI Engine

Displacement124.53cc
Bore x Stroke57.0mm x 48.8mm
Compression Ratio9.4:1
Maximum Power8.10kW(11BHP)@8,000RPM
Maximum Torque[email protected],500RPM
Fuel SupplyCarburetor
IgnitionCDI
Starting MethodKick & Electric Start
Clutch TypeWet, Multiple-disc
LubricationWet Sump
Transmission4-Speed
Dimension
Frame TypeTubular Cradle Frame
Dimension (LxWxH)2,000mm x770mm x 1,070mm
Wheelbase1,265mm
Fuel Capacity14.5 Liters
Wheel, Brake & Suspension
The suspension (Front/Rear)Telescopic Hydraulic /

Series Spring Shock Absorbers x 2

Brake system (Front/Rear)240mm Disk

/ 130mm Drum

Tire size (Front / Rear)Front: 70/90-19

Rear: 90/100-16

Battery12V
Headlamp12V Bulb
SpeedometerAnalog Digital Combo Meter

*All the specifications are subject to change upon company rules, policy, offer & promotion. BikeBD is not liable for the changes.

টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ফিচার রিভিউ

টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ফিচার রিভিউ

তো বন্ধুরা, মোটামুটি এই ছিলো টিভিএস ম্যাক্স ১২৫ ফিচার রিভিউ । আশা করা যায় বাইকটি এর ভিন্ন ফিচার নিয়ে এর বাজার দখল করবে। আর সেই সাথে আমাদেরও পছন্দের পরিসর বেড়ে গেল যাতে আমাদের প্রয়োজনের বাইকটি বেছে নিতে পারি। তো আজ এটুকুই, ধন্যবাদ।

About Saleh Md. Hassan

আমি কোন বাতিকগ্রস্ত পথের খেয়ালী ধরনের নই…. তবে মোটরসাইকেল পছন্দ করি ও প্রয়োজনে ব্যবহার করি মাত্র…. কিছুটা ঘরকুনো বাধ্যগত চালক…. তবে মাঝে মাঝে নিজের ভেতরের যোগী-ভবঘুরে স্বত্তাকে মুক্তি দেই আমার দুইচাকার ঘোড়ার উপর চেপে বসে বিস্তৃত অদেখার পথে ছুটে যাবার জন্য…..অনেকটা বাঁধনহীন চির ভবঘুরের মতো…..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*