টাইমিং চেইন কি? টাইমিং চেইন নষ্ট হয়েছে নাকি কীভাবে বুঝবেন?

টাইমিং চেইন শব্দটার সাথে আমরা বাইকাররা সবাই পরিচিত। প্রতিটা বাইকের জন্য টাইমিং চেইন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ । কিন্তু বাইকের টাইমিং চেইন নষ্ট হয়ে গেলে আমরা অনেকেই বুঝতে পারি না এটা। যার ফলে বাইকে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়, কিন্তু আমরা ধরতে পারি না আসলে বাইকের কি সমস্যা হয়েছে। আজ আমরা বাইকের টাইমিং চেইন লুস অথবা নষ্ট হয়েছে নাকি কীভাবে বুঝবেন এই সম্পর্কে আলোচনা করবো। আপনি যদি এই বিষয়গুলো জানেন তাহলে বাইকের টাইমিং চেইন নষ্ট হলে নিজেই বুঝতে পারবেন।

টাইমিং চেইন

টাইমিং চেইনের কাজ কি?

টাইমিং চেইন একটি বাইকের ইঞ্জিনের ভাল্ব সঠিক সময়ে সঠিক ভাবে খোলা ও বন্ধ হতে সাহায্য করে। টাইমিং চেইন ইঞ্জিনের ভিতরে থাকা ফ্লাইহুইলের সাথে সংযুক্ত করা থাকে। পিস্টন যখন আপ ডাউন করতে থাকে ততক্ষণ ফ্লাইহুইলও ঘুড়তে থাকে। এই ঘুর্ণন শক্তি টাইমিং চেইনের সাহায্যে গিয়ার প্লেটে যায় এবং আমাদের বাইকের ইঞ্জিনের পারফরম্যান্স ঠিক রেখে বাইক চালনা করতে সাহায্য করে।

টাইমিং চেইন ইঞ্জিনের ভেতরে অবস্থান করে তাই ইঞ্জিন না খুলে এটি ভালো আছে নাকি নষ্ট হয়ে গেছে সেটা আপনি দেখতে পারবেন না। কিন্তু টাইমিং চেইন নষ্ট হয়ে গেলে আপনার বাইকে বেশ কিছু সমস্যা সৃষ্টি হবে। আর এগুলো দেখে আপনি বুঝবেন আপনার বাইকের টাইমিং চেইন নষ্ট হয়ে গেছে।

ইঞ্জিন পারফরম্যান্স কমে যাওয়া

১- ইঞ্জিন পারফরম্যান্স কমে যাওয়াঃ

আপনার বাইকের টাইমিং চেইন যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে সবার প্রথমে আপনার বাইকের ইঞ্জিনের পারফরম্যান্স নষ্ট হয়ে যাবে। এর ফলে আপনি যদি আপনার বাইকার সিলিন্ডার পিস্টন নতুন করে লাগান তারপরও আপনার বাইকের ইঞ্জিন আগের মতোন পারফরম্যান্স দিবে না।
আবার আপনি যদি এই সময় টাইমিং চেইন এডজাস্ট করে নেন তাহলেও ইঞ্জিন পারফরম্যান্স ঠিক হবে না। এই চেইন নষ্ট হয়ে গেলে এটা পরিবর্তন করে নিতে হবে।

২- ইঞ্জিন থেকে মিসফায়ার করাঃ

ইঞ্জিন থেকে মিসফায়ার আসা টাইমিং চেইন নষ্টের একটা অন্যতম লক্ষণ। আপনি যদি বাইক হাই স্পীডে থাকা অবস্থায় পিকআপ ছেড়ে দেন তাহলে বাইক থেকে মিসফায়ার আসবে। এই সময় আপনার বাইক ধাক্কাতে পারে।

যদি আপনার বাইকের এই চেইন যদি নষ্ট হয়ে যায় তাহলে ফ্লাইহুইলকে ঘুড়াতে পারে না। ফ্লাই হুইলকে স্পিন না করিয়েই এর উপর দিয়ে ঘুড়ে যায়। যার ফলে বিকট একটা শব্দের সৃষ্টি হয়।

bike timing chain

৩- ইঞ্জিন থেকে বাজে শব্দ আসবেঃ

বাইকের টাইমিং চেইন যদি লুস হয়ে যায় তাহলে আপনার বাইকের ইঞ্জিন থেকে ইঞ্জিনের সাউন্ড ছাড়াও বাজে একটা শব্দ হবে। আর এই শব্দটি আপনার ইঞ্জিনের রেগুলার শব্দের সাথে মিলবে না। যদি আপনার বাইকে এমনটা হয় তাহলে আপনার বুঝতে হবে টাইমিং চেইন ঠিকমত ঘুড়তে পারছে না। যদি এমনটা হয় তাহলে আপনার পরিচিত অভিজ্ঞ কোন ম্যাকানিকের কাছে বাইকটি নিয়ে যান। তবে এই কাজটি সব সময় অভিজ্ঞ কোন ম্যাকানিক দিয়ে করাবেন।

৪- ইঞ্জিন অয়েল ড্রেনের সময় ধাতব কণা বের হবেঃ

টাইমিং চেইন যদি লুস অথবা নষ্ট হয়ে তাহলে পুরাতন ইঞ্জিন অয়েলের সাথে কিছু ধাতব কণার মিশ্রণ পাওয়া যাবে। আপনি যখন আপনার বাইকের ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করবেন তখন ভালোভাবে লক্ষ্য করুন কোন ধাতব কণা পাওয়া যায় কিনা। যদি এমন কিছু হয় তাহলে দ্রুত টাইমিং চেইন পরিবর্তন করে ফেলুন। কারন ইঞ্জিন অয়েলের সাথে বেড়িয়ে আসা এই ধাতব কণা আপনার বাইকের ইঞ্জিনের অন্য অংশগুলোতে বেশ ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে।

engine oil drain

টাইমিং চেইন প্রতিটি বাইকের জন্য খুব গুরুত্বপুর্ণ। আপনার বাইকের টাইমিং চেইন যদি লুস হয়ে যায় তাহলে অবহেলা না করে দ্রুত এটি ঠিক করুন। টাইমিং চেইন সব সময় অভিজ্ঞ কোন ম্যাকানিক দিয়ে পরিবর্তন করাবেন, কারন টাইমিং চেইন এডজাস্ট সবাই করতে পারে না। আর আপনার বাইক যদি কোন অনভিজ্ঞ মেকানিকের হাতে যায় তাহলে বাইকে অন্য অনেক সমস্যার শুরু হতে পারে। সব সময় নিজের বাইকের যত্ন নিন এবং হেলমেট ব্যবহার করুন।

About Ashik Mahmud

ashik.bikebd@gmail.com'

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*