ইয়ামাহা টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের মোটরসাইকেল আনতে চলেছে

আমরা যারা বাইকের পাশাপাশি গাড়ি সম্পর্কে কিছুটা ধারণা রাখি তারা সবাই টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের কথা একবার হলেও শুনেছি। গাড়ি নির্মাণকারী সংস্থাগুলি তার ইঞ্জিনের জ্বালানি খরচ হ্রাস এবং তার শক্তির সাথে কোন আপস না করে নির্গমনকে হ্রাস করার আদর্শ উপায় হিসাবে টার্বোচার্জিংয়ের পদ্ধতি বেছে নিয়েছেন। বর্তমান সময়ে মোটরসাইকেলের নির্মাতারা এই টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের মোটরসাইকেল এর স্বাদ গ্রহণ করতে শুরু করেছে। ইয়ামাহা বেশ কয়েকটি টার্বো ইঞ্জিন তৈরি করছে যা আগামী বছরগুলিতে বেশ কয়েকটি বাইকে শক্তি সরবরাহ করবে।

yamaha turbo motorcycle

আরও পড়ুন>> ইয়ামাহার সকল বাইকের বর্তমান মূল্য

ইন্টারনেটের বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে ইয়ামাহা ইঞ্জিনিয়াররা ২০১৭ সালে টার্বোচার্জিং প্রযুক্তির বিকাশ শুরু করেছিলেন। সংস্থাটি দুটি লেআউট নিয়ে পরীক্ষা নিরীক্ষা করেছিল,এর মধ্যে একটি টার্বোটিকে এক্সস্টোস্টের ভিতরে রাখে, এটি একটি অস্বাভাবিক কনফিগারেশন এবং অন্যটি এটি এক্সটোস্ট ম্যানিফোল্ডের কাছে রাখে, যা স্বয়ং চালিত শিল্পে সাধারণত দেখা যায় এমন ব্যবস্থা।

দেখে মনে হচ্ছে ইয়ামাহা খরচ এবং প্যাকেজিংয়ের কারণে দ্বিতীয় অর্থাৎ প্রচলিত সমাধানটি বেছে নিয়েছে। ইয়ামাহার এই সিদ্ধান্ত মোটরসাইকেলের জগতে নতুন কিছু নিয়ে আসছে এতে কোন সন্দেহ নেই। বিশ্বব্যাপী বাইক শিল্পকে আমরা নতুন করে দেখতে চলেছি খুব শীঘ্রই। তবে বাইকের ক্ষেত্রে নতুন এই প্রযুক্তি বাজারে আনতে ইয়ামাহাকে বেশ কিছু নিয়ম কানুন অনুসরণ করতে হবে।

turbo motorcycle

তবে এই প্রযুক্তি অনুসারে ১৬০ হর্সপাওয়ারের Yamaha MT-10 এর মতো উচ্চ-পারফরম্যান্সের মডেল তৈরি করা আগের চেয়ে আরও কঠিন হবে। যা দেখার বাকি রয়েছে তা হল, ইয়ামাহা তাদের কোন কোন বাইকের মডেলে টার্বোচার্জারটি উদ্বোধন করবেন এবং কখন এগুলো বাজারে নিয়ে আসবে। ইউরোপীয় দেশে ১ লা জানুয়ারী ২০২০ এ ইউরো ৫ এর নিয়মকানুনে বাইক বানানো শুরু করে।

টার্বোচার্জড ইঞ্জিন কি? এই ইঞ্জিনের সুবিধা এবং অসুবিধা কি এই সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

টার্বোচার্জড ইঞ্জিন কি?

টার্বোচার্জারটি একটি টারবাইন এবং বায়ু সংক্ষেপক সমন্বিত একটি উপাদান যা ইঞ্জিন থেকে নির্গত বর্জ্য নিষ্কাশন গ্যাসগুলিকে কাজে লাগাতে ব্যবহৃত হয়। এটি সিলিন্ডারে আরও বাতাসকে চাপ দেয়, ইঞ্জিনকে আরও শক্তি তৈরি করতে সহায়তা করে।

turbo

টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের সুবিধা কী?

টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের বিভিন্ন ধরণের সুবিধা রয়েছে। সে কারণেই এই ইঞ্জিন এখন আধুনিক গাড়িগুলিতে এত জনপ্রিয়। এখানে আমরা টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের প্রধান সুবিধাগুলো তুলে ধরবোঃ

বেশি শক্তি উৎপন্ন করেঃ

টার্বো ইঞ্জিন একই সাইজের অন্য ইঞ্জিনের চেয়ে অনেক বেশি শক্তিশালী। এর কারণ হলো পিস্টনের প্রতিটি স্ট্রোক প্রাকৃতিক উচ্চাকাঙ্ক্ষী ইঞ্জিনগুলির চেয়ে বেশি শক্তি উৎপন্ন করে। এর ফলে আপনি আপনার ছোট গাড়িতেও অনেক শক্তির ইঞ্জিন পাচ্ছেন।

টর্ক এবং পারফরম্যান্সঃ

ক্ষুদ্রতম ইঞ্জিনগুলিতেও টার্বোচার্জারগুলি আরও বেশি ঘূর্ণন উৎপন্ন করতে সক্ষম। এর ফলে আপনি আপনার গাড়ি থেকে শক্তিশালী পারফরম্যান্স পেয়ে উপকৃত হবেন। আর এই ইঞ্জিন আপনাকে উচ্চ গতিতে এগিয়ে যেতে বেশ সাহায্য করবে।

স্মুথ ইঞ্জিনঃ

যেহেতু টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের মোটরসাইকেল এ বাতাসটি অনেকগুলো পাইপের মধ্যে দিয়ে ফিল্টার করা হয় সেজন্য এই ইঞ্জিন থেকে আপনি স্মুথ সাউন্ড এবং আপনার পছন্দের পারফরম্যান্সটি পাবেন।

টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের মোটরসাইকেল

টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের অসুবিধা কী?

ব্যয়বহুলঃ

টার্বোচার্জারগুলি ইঞ্জিনে জটিলতা যুক্ত করে, বোনেটের নীচে অন্যান্য উপাদানগুলির পুরো হোস্ট থাকে যা নষ্ট হয়ে যেতে পারে। আর এই ইঞ্জিন মেরামত করতে অন্য ইঞ্জিনের চেয়ে খরচ অনেক বেশি হয়। আর এই ইঞ্জিনের কাজ করার জন্য অভিজ্ঞ টেকনিশিয়ান দরকার হয়।

দক্ষতা এবং ড্রাইভিং স্টাইলে পরিবর্তনঃ

টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের মোটরসাইকেল সঠিকভাবে পরিচালনা করার জন্য বেশ দক্ষতার প্রয়োজন হয়ে থাকে। এই ইঞ্জিন অন্য সাধারণ ইঞ্জিনের মতো না, তাই যদি আপনি দক্ষ না হয়ে থাকেন তাহলে আপনার দ্বারা ইঞ্জিনের বড় রকমের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ইয়ামাহা সম্ভবত বছরের শেষের আগে তার প্রথম আধুনিক টার্বোচার্জড ইঞ্জিনের মোটরসাইকেল প্রদর্শন করবে। যদিও ২০২০ সালে নতুন নতুন বাইকগুলির কাছ থেকে বাইকারদের আশার কোন কমতি নেই। বাইকাররা এখন নতুন প্রযুক্তির বাইকগুলোর বাজারে আসার অপেক্ষায় আছে, তাই নির্মাতারাও এটা নিয়ে অনেক পরীক্ষা চালাচ্ছে।

About Ashik Mahmud

ashik.bikebd@gmail.com'

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*