Royal Enfield আসছে বাংলাদেশে ইফাদ গ্রুপের মাধ্যমে!

Royal Enfield বাংলাদেশে আসতে চলেছে। হ্যা, আপনি ঠিক শুনেছেন। Royal Enfield বাংলাদেশে আসতে যাচ্ছে। যদিও ভাবতে একটু অবাক লাগছে তাই না। যে বাইকটি আমরা এখন বাংলাদেশে দেখতে পাবো। ইফাদ গ্রুপের এর হাত ধরে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে যাচ্ছে বিখ্যাত রয়েল এনফিল্ড।

royal enfield logo on bike

Royal Enfield, নামটি শোনা মাত্রই চোখের সামনে একটি ব্র্যান্ড ভেসে আসে। ক্ল্যাসিক লুকস, রেট্রো ডিজাইন ও সাউন্ডের কারণে রয়েল এনফিল্ড পৃথিবী বিখ্যাত। বিশেষ ভাবে রয়েল এনফিল্ড এর ক্ল্যাসিক লুকস অনেকের কাছেই পছন্দের। যেহেতু বাংলাদেশে ৩৫০সিসি এর পারমিশন পাওয়া যাবে বলে শোনা যাচ্ছে সেইসূত্র ধরে আমরা বলতে পারি Royal Enfield বাংলাদেশে আসতে যাচ্ছে ইফাদ গ্রুপের এর হাত ধরে।

রয়েল এনফিল্ড এর তিনটি মোটরসাইকেল রয়েছে ৩৫০সিসি ক্যাটাগরিতে। এই তিনটি হচ্ছে Royal Enfield Meteor 350, Royal Enfield Bullet 350 এবং Royal Enfield Classic 350 । এই বাইক গুলোর লুকস ডিজাইন সব কিছু মিলিয়ে অসাধারণ তিনটি বাইক।

Click To See All Royal Enfield Bike Price In Bangladesh

royal enfield classic 350 dual channel abs

এখন ভাবনার বিষয় হচ্ছে বাইক গুলোর মধ্যে কি রয়েছে। প্রথমত আসা যাক, রয়েল এনফিল্ড ক্ল্যাসিক ৩৫০, বাইকটির ইঞ্জিন হচ্ছে ৩৪৬সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক, এয়ারকুল্ড ফুয়েল ইঞ্জেকশন ইঞ্জিন। এই ইঞ্জিন থেকে সর্বোচ্চ 19.1 bhp @ 5250 rpm এবং 28 Nm @ 4000 rpm শক্তি উৎপন্ন করতে সম্ভব। বুঝতেই পারছেন শক্তিশালী একটি ইঞ্জিন। এছাড়া এই বাইকটি ডিজাইন সম্পূর্ন ভাবে ক্ল্যাসিক স্টাইলে রাখা হয়েছে। অনেকটাই ক্যাফে রেসার।

এছাড়া সামনের দিকে রয়েছে টেলিস্কোপিক ৩৫মিমি ফর্ক, আর রেয়ার সাসপেনশন হচ্ছে ৫ স্টেপ এডজাস্টেবল টুইন গ্যাস চার্জড শক এবজরভার। বাইকটি টায়ার নিয়ে যদি বলি টিউব এবং টিউলেস দুটো ভার্সন ই রয়েছে। আর এতে যুক্ত করা হয়েছে ডুয়েল চ্যানেল ও সিঙ্গেল চ্যানেল এবিএস। এতে করে বাইকটি কন্ট্রোলিং আর দারূন হয়েছে।

royal enfield bullet 350 black color in bangladesh

এরপর যে বাইকটি নিয়ে বলব তা হলো, রয়েল এনফিল্ড বুলেট ৩৫০, এই বাইকটিতে রয়েছে বাইকটির ইঞ্জিন হচ্ছে ৩৪৬সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক, এয়ারকুল্ড ফুয়েল ইঞ্জেকশন ইঞ্জিন। এই ইঞ্জিন থেকে 19.1 bhp @ 5250 rpm এবং 28 Nm @ 4000 rpm পরিমান শক্তি উৎপন্ন করতে সক্ষম। বাইকটি দুটি ভার্সন রয়েছে একটি হচ্ছে কিক স্টার্ট অপরটি হচ্ছে কিক এবং ইলেক্ট্রিক উভয়ই দেয়া হয়েছে।

এছাড়া ব্রেকিং এ যুক্ত করা হয়েছে সিঙ্গেল চ্যানেল এবিএস। আর টায়ারের ক্ষেত্রে ক্ল্যাসিক স্পোক হুইল দেয়া হয়েছে। এটাইও ক্যাফে রেসার ডিজাইন রাখা হয়েছে। বাইকটি লুকসের দিকে তাকালে রেট্রো ডিজাইন আকর্ষণ করে থাকে।

সবশেষে রয়েছে রয়েল এনফিল্ড মিটিওর ৩৫০, বাইকটি অন্য দুটি বাইকের থেকে কিছুটা ভিন্ন। এর ইঞ্জিন হচ্ছে ৩৪৯সিসি, সিঙ্গেল সিলিন্ডার, ফোর স্ট্রোক, এয়ার – ওয়েল কুল্ড ইঞ্জিন। এর ইঞ্জিন থেকে 20.1 BHP @ 6100 rpm এবং 21 NM @ 4000 rpm পর্যন্ত শক্তি উৎপন্ন করতে সক্ষম। তাহলে বুঝতেই পারছেন বাইকটি অপর দুটি বাইক থেকে কিছুটা শক্তিশালী। এর ডিজাইন কিছুটা ক্রুজিং টাইপের। বলা যায় একে ক্রুজার হিসেবেই ডিজাইন করা হয়েছে।

royal enfield meteor 350 blue color price in bangladesh

বাইকটির ফিচার্স এর মধ্যে রয়েছে EFI ইগনিশান, টিউবলেস টায়ার, ডুয়েল ডিস্ক, ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন হচ্ছে এর ডুয়েল চ্যানেল এবিএস। যা এখনকার বাইকের ফিচার্স এর মধ্যে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ন।  অপরদিকে সব গুলো বাইকের ইঞ্জিন হচ্ছে BS-VI।

এখন, উপরে বলেছিলাম ইফাদ গ্রুপের এর কথা। তারা সম্প্রতি রয়েল এনফিল্ড এর সাথে একটি চুক্তিতে গিয়েছে। আশা করা যাচ্ছে তাদের হাত ধরেই বাংলাদেশে আসতে যাচ্ছে রয়েল এনফিল্ড। আর যদি তাই হয়। অনেক বাইকারের স্বপ্নের বাইকটি তারা বাংলাদেশের রাস্তায় রাইড করতে পারবেন। আশা করছি ৩৫০সিসি পারমিশনের সাথে Royal Enfield বাংলাদেশে দ্রুত চলে আসবে। সে পর্যন্ত সবাই কে অপেক্ষা করতে হবে। আর আমাদের সাথেই থাকুন আমরা আপনাদের প্রতিনিয়ত সর্বশেষ আপডেট জানিয়ে দেব। ধন্যবাদ।

About Arif Raihan opu

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*