কিভাবে বুঝবেন ইঞ্জিন অয়েলটি আপনার বাইকের জন্য উপযুক্ত না

নকল আর খারাপ ইঞ্জিন অয়েল নিয়ে আমাদের প্রায় বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, কিন্তু যে ইঞ্জিন অয়েল ব্যবহার করছেন সেই ইঞ্জিন অয়েলটি আপনার বাইকের জন্য উপযুক্ত নয় এটা কিভাবে বুঝবেন। আজ আমরা এই নিয়ে আপনাদের সাথে বিস্তারিত আলোচনা করবো, ইঞ্জিন অয়েল দেয়ার পর আপনার বাইকে যদি এই সমস্যাগুলো দেখা দেয় তাহলে আপনার বুঝে নিতে হবে ইঞ্জিন অয়েলটি আপনার বাইকের জন্য সঠিক না।

ইঞ্জিন অয়েলটি

এখনো আমাদের মধ্যে এমন অনেক বাইকার আছেন যারা স্থানীয় কোন গ্যারেজে যান বাইকের ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করতে, আর গ্যারেজ থেকে আপনাকে যেটি বলা হয় আপনি ওই ইঞ্জিন অয়েলটি বাইকে ব্যবহার করেন। কিন্তু এটি একটা ভুল কাজ, আপনি যেই ব্রান্ডের ইঞ্জিন অয়েল ব্যবহার করেন না কেনো আপনার সবার আগে আপনার বাইকের ইঞ্জিন অয়েল গ্রেড জানতে হবে। ইঞ্জিন অয়েলের গ্রেড জেনে আপনি আপনার পছন্দমতোন যে কোন ব্রান্ডের ইঞ্জিন অয়েল ব্যবহার করতে পারেন।

ইঞ্জিন অয়েলটি আপনার বাইকের জন্য উপযুক্ত না সেটা কিভাবে বুঝবেন?

ইঞ্জিন খুব বেশি হিট হয়ে যাওয়াঃ

১- ইঞ্জিন খুব বেশি হিট হয়ে যাওয়াঃ

চারপাশের আবহাওয়া , নিজের বাইক রাইডিং স্টাইল , বাইকের বিভিন্ন সমস্যা ইত্যাদি কারনে বাইকের ইঞ্জিন হিট হওয়া কমন একটা ব্যাপার। কিন্তু সব কিছু যদি ঠিক থাকে তারপরও যদি আপনার বাইকের ইঞ্জিন অতিরিক্ত হিট হয়ে যায় সেক্ষেত্রে আপনার বুঝতে হবে আপনার বাইকের ইঞ্জিন অয়েলটি আপনার বাইকের জন্য উপযুক্ত না। যেহেতু আমি একজন বাইকার এবং বাংলাদেশের কম বেশি অনেক ব্রান্ডের ইঞ্জিন অয়েল আমার ব্যবহার করা হয়েছে , সেই অভিজ্ঞতা থেকে বলছি ইঞ্জিন অয়েল যদি বাইকের সাথে না মিলে তাহলে বাইকের ইঞ্জিন অতিরিক্ত হিট হয়ে যাবে। বাইকের ইঞ্জিন অতিরিক্ত হিট হওয়ার ফলে আপনার বাইক যদি এয়ারকুলড ইঞ্জিনের হয় সেক্ষেত্রে লং রাইডের সময় আপনার বাইকের পারফরম্যান্স কমে যেতে পারে।

আরও পড়ুন >> ইঞ্জিন অতিরিক্ত গরম হওয়ার কারন কি

গিয়ার শিফটিং হার্ড হয়ে যাওয়া

২- গিয়ার শিফটিং হার্ড হয়ে যাওয়াঃ

অনেক সময় আপনি হয়তো খেয়াল করেছেন ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তনের পর আপনার বাইকের গিয়ার শিফটিং অনেক বেশি হার্ড হয়ে যায়। আগে গিয়ার শিফটিং যেমন স্মুথ ছিলো সেই স্মুথ আর থাকে না। আপনি যে ইঞ্জিন অয়েলটি কিনেছেন সেটা যদি আপনার বাইকের ইঞ্জিনের জন্য উপযুক্ত না হয় সেক্ষেত্রে অনেক সময় বাইকের গিয়ার শিফটিং হার্ড হয়ে যায়। আপনার বাইকের সব কিছু ঠিক থাকার পরও যদি বাইকের গিয়ার শিফটিং হার্ড হয়ে যায় সেক্ষেত্রে আপনার বাইকের ইঞ্জিন অয়েলটি পরিবর্তন করে দেখুন , আশাকরি এই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।

বাইকের ইঞ্জিন জ্যাম হয়ে যাওয়া

৩- বাইকের ইঞ্জিন জ্যাম হয়ে যাওয়াঃ

আপনার বাইকের ইঞ্জিন অয়েলে যদি কোন সমস্যা থাকে অথবা ইঞ্জিন অয়েলটি যদি আপনার বাইকের ইঞ্জিনের জন্য উপযুক্ত না হয় সেক্ষেত্রে আপনার বাইকের ইঞ্জিন অনেক বেশি জ্যাম হয়ে যাবে। আগে আপনি বাইকটা চালিয়ে যে মজা পেতেন সেই মজা আর পাবেন না। আপনি যখন বাইকটি টান দিবেন তখন আপনার মনে হবে বাইকের ইঞ্জিন আগের মতোন কাজ করছে না। এর ফলে আপনার বাইকের রেডি পিকাপ কমে যাবে এবং আপনি আপনার বাইক থেকে টপ স্পীডও কিছুটা কম পাবেন। বাইকের সব কিছু ঠিক থাকার পরও এমন সমস্যা হলে বাইকের ইঞ্জিন অয়েলটি পরিবর্তন করে ফেলুন।

ইঞ্জিনের সাউন্ড নষ্ট হয়ে যাবে

আরও পড়ুন >> বাংলাদেশের সকল বাইকের বর্তমান মূল্য

৪- ইঞ্জিনের সাউন্ড নষ্ট হয়ে যাবেঃ

ইঞ্জিন অয়েল যদি বাইকের জন্য উপযুক্ত না হয় সেক্ষেত্রে অনেক সময় বাইকের সাউন্ড নষ্ট হয়ে যায় এবং এর থেকে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার বাইকের ইঞ্জিনে কোন না কোন সমস্যা আছে। তবে ইঞ্জিনের সাউন্ড কিন্তু শুধুমাত্র ইঞ্জিন অয়েলের জন্য নষ্ট হয় না, আরও অনেক কারনে ইঞ্জিনের সাউন্ড নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

আপনি যে ইঞ্জিন অয়েলটি ব্যবহার করছেন সেই ইঞ্জিন অয়েলটি আপনার বাইকের জন্য উপযুক্ত না হলে বাইকে অধিকাংশ সময় এই সমস্যাগুলো দেখা দেয়। কিন্তু আপনার বাইকে যদি অন্য কোন সমস্যা থেকে থাকে তাহলেও আপনার বাইকে এই সমস্যাগুলো দেখা দিতে পারে।

About Ashik Mahmud

ashik.bikebd@gmail.com'

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*